বলতে গেলে একা হাতে লড়ে গেলেন শাই হোপ। ওপেনিংয়ে নেমে দলের জয় নিশ্চিত করে তবেই মাঠ ছেড়েছেন এই ব্যাটসম্যান। মিরপুরের দ্বিতীয় ওয়ানডে বাংলাদেশ হারালো হোপের অসাধারণ সেঞ্চুরির ইনিংসের কাছেই। চরম উত্তেজনা ছড়ানো ম্যাচটি ৪ উইকেটে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তিন ম্যাচের সিরিজে ফেরালো ১-১ সমতা।

ওপেনিংয়ে নেমে শেষ পর্যন্ত ব্যাটিং করেছেন হোপ। খেলেছেন হার না মানা ১৪৬ রানের ইনিংস। যা তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসও বটে। ১৪৪ বলের এ ইনিংস খেলতে ১টি চারের পাশাপাশি ৩টি ছক্কা মেরেছেন এ ওপেনার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৭ রানের ইনিংস আসে ব্রাভোর ব্যাট থেকে। স্যামুয়েলস খেলেন ২৬ রানের ইনিংস। শেষ দিকে পলের ব্যাট থেকে আসে মূল্যবান ১৮টি রান। তাতেই ২ বল হাতে রেখে জয় পায় দলটি।

শেষ ৩ ওভারে উ ইন্ডিজের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩২ রানের। ৪৮তম ওভারে ১০ রান দেন রুবেল হোসেন। এরপরের ওভারে টাইগারদের সব আশা ছিল মোস্তাফিজুর রহমানকে ঘিরে। কিন্তু হতাশ করেন তিনি। সে ওভারে ১৬ রান দিলে কার্যত শেষ হয়ে যায় টাইগারদের আশা। মাহমুদউল্লাহর করা শেষ ওভারে প্রয়োজনীয় ৬ রান তুলে নিতে কোন সমস্যা হয়নি সফরকারীদের।

বাংলাদেশের পক্ষে দারুণ নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছিলেন সাকিব আল হাসান। ১০ ওভারে ২৮ রান দিয়েছেন তিনি। যদিও উইকেট পাননি। টাইগারদের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন রুবেল ও মোস্তাফিজ।

রোমাঞ্চকর এ জয়ে সিরিজে সমতা ফেরালো ক্যারিবিয়ানরা। আগামী শুক্রবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামেই হচ্ছে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ২৫৫/৭ (তামিম ৫০, লিটন ৮, ইমরুল ০, মুশফিক ৬২, সাকিব ৬৫, মাহমুদউল্লাহ ৩০, সৌম্য ৬,  মাশরাফি ৬*, মিরাজ ১০*; রোচ ১/৩৯, টমাস ৩/৫৪, চেজ ০/২২, পল ১/৬৮, বিশু ১/২৭, পাওয়েল ১/৪১)।

উইন্ডিজ: ৪৯.৪ ওভারে ২৫৬/৬ (হেমরাজ ৩, হোপ ১৪৬*, ব্রাভো ২৭, স্যামুয়েলস ২৬, হেটমায়ার ১৪, পাওয়েল ১, চেজ ৯, পল ১৮*; সাকিব ০/২৮, মিরাজ ১/৩৯, মোস্তাফিজ ২/৬৩, মাশরাফি ১/৫২, মাহমুদউল্লাহ ০/১২, রুবেল ২/৫৭)।

ফলাফল: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: শাই হোপ

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here