এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাবেক ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোহেনকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দুই মামলায় একাধিক অভিযোগে বুধবার তার বিরুদ্ধে এ রায় দেন নিউ ইয়র্কের আদালত।

অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে, ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে অর্থের বিনিময়ে দুই নারীর মুখ বন্ধ করা, রাশিয়ায় প্রস্তাবিত ট্রাম্প টাওয়ার প্রজেক্টের ব্যাপারে মিথ্য সাক্ষ্য এবং কর ফাঁকি দেওয়া। এর সবগুলোতেই দোষ স্বীকার করেছেন মাইকেল কোহেন। খবর সিএনএন।

নিউ ইয়র্কের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট এবং বিশেষ কাউন্সেল রবার্ট মুলারের মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে তদন্তের আওতায় মাইকেল কোহেনের বিরুদ্ধে মামলা দুটি করা হয়েছিল। তবে বুধবারের রায়ের মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো রুশ সংযোগের দায়ে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সহযোগীদের মধ্যে কাউকে কারাদণ্ড দেওয়া হলো।

বুধবার নিউ ইয়র্ক আদালতে নিজের সব অপকর্মের জন্য সাবেক মক্কেল ট্রাম্পকে দায়ী করেন মাইকেল কোহেন। তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে, সেগুলো তিনি ট্রাম্পের নির্দেশেই করেছেন বলে জানান এই আইনজীবী।

নিউ ইয়র্কের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের মামলায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক নিয়ে মুখ বন্ধ রাখতে পর্ন তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলস এবং সাবেক প্লেবয় মডেল কারেন ম্যাকডোগালকে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এভাবে ঘুষ দিয়ে কারও মুখ বন্ধ রাখার চেষ্টা বেআইনি।

মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে তদন্তকারী বিশেষ কাউন্সেল রবার্ট মুলারের মামলায় কোহেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে সম্ভাব্য ট্রাম্প টাওয়ার প্রজেক্ট নিয়ে মার্কিন কংগ্রেসের শুনানিতে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। নিজের বিরুদ্ধে আনা এ সংক্রান্ত অভিযোগ স্বীকার করে মাইকেল কোহেন বলেছেন, রাশিয়ায় ট্রাম্পের নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের প্রকল্পের ব্যাপারে তিনি কংগ্রেস সদস্যদের বিভ্রান্ত করেছিলেন।

২০১৬ সালে নির্বাচনের আগে পর্নো তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে নিজের আইনজীবী কোহেনের মাধ্যমে এক লাখ ৩০ হাজার ডলার পরিশোধ করেছিলেন ট্রাম্প। ২০০৬ সালের দিকে দুই জনের মধ্যে থাকা ব্যক্তিগত সম্পর্ক গোপন রাখতে তাকে ওই টাকা দেওয়া হয়েছিল। প্রথমে অভিযোগ অস্বীকার করলেও ফেব্রুয়ারিতে বিবৃতি দিয়ে ড্যানিয়েলসকে টাকা দেওয়ার কথা স্বীকার করেন কোহেন।

২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পকে জিতিয়ে দেয়ার জন্য রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছিল বলে ডেমোক্র্যাট পার্টির পক্ষ থেকে জোর অভিযোগ জানানো হয়েছিল। কংগ্রেসের শুনানিতে রাশিয়ায় ট্রাম্পের প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে একটি ভবন নির্মাণের বিষয়ে রুশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিজের যোগাযোগের বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দেন তিনি। ওই ভবনটি অবশ্য শেষ পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়নি।

মাইকেল কোহেন প্রায় এক দশক ধরে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত আইনজীবী ছিলেন। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর তার প্রতি কোহেনের সমর্থন এতটা বেড়ে গিয়েছিল যে, এক পর্যায়ে তিনি বলেছিলেন, ট্রাম্পকে রক্ষার জন্য প্রয়োজনে তিনি গুলির সামনে বুক পেতে দেবেন। তবে আদালতের রায়ে সাজা পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় নিজের সব অপকর্মের জন্য সাবেক মক্কেল ট্রাম্পকে দায়ী করেন এই আইনজীবী।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here