ইয়েমেনের যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যে স্বাক্ষরিত প্রাথমিক সমঝোতা চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, এটি আস্থা সৃষ্টির ক্ষেত্রে ইতিবাচক পদক্ষেপ এবং তা পরবর্তী আলোচনার ক্ষেত্র তৈরিতে ভূমিকা রাখবে। পরবর্তী আলোচনার মধ্যদিয়ে চূড়ান্ত চুক্তিতে পৌঁছানো সম্ভব হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) জাতিসংঘের মহাসচিব এন্তোনিও গুতেরেসের উপস্থিতিতে ইয়েমেনে যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যে প্রাথমিক সমঝোতা হয়েছে। এই সমঝোতায় উভয় পক্ষ হুদায়দায় যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছে। এর ফলে ত্রাণ সরবরাহ সহজ হবে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরও বলেছেন, হুদায়দা ইস্যুতে যে সমঝোতা হয়েছে তা থেকে এটা স্পষ্ট ইয়েমেনের সব পক্ষ সেদেশের নিরপরাধ মানুষের দুঃখ-কষ্টের বিষয়টি ভালোভাবে উপলব্ধি করতে পেরেছে এবং ত্রাণ তৎপরতাকে গুরুত্ব দিয়েছে। সব পক্ষই দ্রুত তাদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

গত ৬ ডিসেম্বর থেকে সুইডেনের স্টকহোমে ইয়েমেনের যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যে আলোচনা শুরু হয়। হুদায়দায় যুদ্ধবিরতির বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সমঝোতার মধ্যদিয়ে গতকাল আলোচনা শেষ হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here