যে সুন্দর দেখে সবাই মুগ্ধ হয়। সেই সুন্দরের সব কিছুই দখলে তার। সেলুলয়েডে নিজের সৌন্দর্য দিয়ে মন জয় করেছেন কোটি ভক্তের। দীর্ঘদির পর্দা কাঁপিয়েছেন। শুধু তা-ই নয়, নিজের রূপের ঝলকানিতে চলচ্চিত্রের অনেকের মনে প্রেমের ঝড়োহাওয়া তৈরি করেন। অনেক ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়ে সুন্দরকে করেছেন অপরূপ সুন্দর। তিনি চিত্রনায়িকা শাবনূর। শাবানা-ববিতার পর তাকেই ‘অভিনেত্রী’র খেতাব দিয়েছেন অনেক গুণীজন। আজ এই অনিন্দ্যসুন্দরের জন্মদিন। আমাদের সময় পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। তবে এবারের জন্মদিনে বিশেষ কোনো আয়োজন রাখা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন এই নায়িকা।

তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রের গুণীজন আমজাদ হোসেন আমাদের মাঝে নেই। তাই মন ভীষণ খারাপ। আমি সবাইকে না করেছি কোনো প্রকার অনুষ্ঠান করতে।’

শাবনূরের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছিল ক্লাস এইটে পড়ার সময়েই, প্রয়াত চলচ্চিত্র নির্মাতা এহতেশামের হাত ধরে। গত শতকের নব্বই দশকের চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় এই নায়িকা টানা কাজ করেছেন ২০১০ সাল পর্যন্ত। তার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে উপহার দিয়েছেন অসংখ্য ব্যবসাসফল ছবি। কয়েক বছর ধরে অভিনয়ে অনিয়মিত একসময়ের দাপুটে এই চিত্রনায়িকা। শাবনূর এখন আর ছবির শুটিং করেন না। শুটিংয়ের জন্য যেতে হয় না দেশের নানা জায়গায়। চলচ্চিত্রের ঘরোয়া অনুষ্ঠান ছাড়া জনসমক্ষে খুব একটা আসেন না তিনি। একমাত্র সন্তান আইজানকে নিয়ে যান চলচ্চিত্রের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। কিন্তু ভক্ত-দর্শক তাকে ভোলেনি।

শাবনূর বলেন, ‘দেশের মানুষ ভালোবেসে আমাকে শাবনূর বানিয়েছেন। এই ভালোবাসা সব সময় অনুভব করি। আমি সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। আমার যাওয়ার খবরে এত মানুষ জমা হবে, ভাবতে পারিনি। সবার প্রতি আমার ভালোবাসা রইল। আমার জন্য দোয়া করবেন।’ আপনি বললেন, চলচ্চিত্র আপনাকে অনেক কিছুই দিয়েছে। আপনি সেই চলচ্চিত্রের জন্য কি কিছু ভাবছেন? শাবনূর বলেন, ‘চলচ্চিত্র নিয়ে অনেক কিছুই করার ইচ্ছা আছে। আমি নির্মাতা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার স্বপ্ন দেখি। চলচ্চিত্রনির্মাতা হিসেবে যা করা যায়, তা করে যাব।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here