তামিম ইকবালকে দিয়ে শুরু। সব মিলিয়ে পেয়েছেন চার উইকেট। উইকেট পেয়ে প্রতিবারই শেলডন কোটরেল স্যালুট দেওয়ার ভঙ্গিমায় করেন উদযাপন। বাংলাদেশকে কাবু করার দিনে ২৮ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরাও তিনি। উইন্ডিজের জয়ের নায়ক ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন তার উদযাপনের রহস্য।

বাংলাদেশের ইনিংসের শুরু থেকেই হানা দিয়েছিলেন শেলডন। তামিম আর সৌম্য সরকারকে শর্ট বল দিয়ে টপ এজ করিয়েছেন। বাংলাদেশের টপ স্কোরার সাকিব আল হাসানকেও ফিরিয়েছেন কট এন্ড বোল্ড করে। মাহমুদউল্লাহকে নাজেহাল করেছেন আউট স্যুয়িং দিয়ে। ২৮ রানে চার উইকেটে ১২৯ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। ওই রান তাদের ব্যাটসম্যানরা পরে পেরিয়েছেন তুড়ি মেরে।

ক্যারিবিয়ানদের জয় আর তার অসামান্য নৈপুণ্যের মাঝে আলাদা করে নজর কেড়েছে বিশেষ উদযাপন। সংবাদ সম্মেলনে উদযাপনের প্রসঙ্গ টানতেই হেসে জবাব দিলেন,  ‘জ্যামাইকান প্রতিরক্ষা বাহিনীতে আমি সৈনিক ছিলাম, স্যালুট দেওয়ার উদযাপনটা সেখান থেকে এসেছে। কোন সফলতার পর সতীর্থদের কৃতজ্ঞতা জানানোর এটা একটা উপায়। আমি জানি আমি একটা আন্তর্জাতিক দায়িত্বে আছি। কাজেই এটা উদযাপনের একটা ধরণ।’

টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের কাছে পাত্তা না পাওয়া ক্যারিবিয়ানরা টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করেছে জয় দিয়ে। শুরুতেই সিরিজে এগিয়ে যেতে পেরেছে। এমন জয়ই বাকি সিরিজেও তাদের জ্বালানি দিবে বলে ভাবছেন শেলডন, ‘অবশ্যই। এই মোমেন্টাম পরের দুই ম্যাচেও ধরে রেখে সিরিজ শেষ করতে চাইব। আমাদের মধ্যে এই আলোচনায় হয়েছে। একটা জয় দরকার ছিল মুড ফিরে পাওয়ার জন্য। এই জয় পরের দুই ম্যাচে ভাল খেলার প্লাটফর্ম দিবে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here