ক্যানসার কোষ শিকার ও নির্মূলের জন্য প্রতিরোধ কোষকে (ইমিউন সিস্টেম) অধিক শক্তিশালী করে তোলা একটি ‘বৈপ্লবিক’ ওষুধ মানুষের ওপর ব্যবহার অনুমোদন করেছে অস্ট্রেলিয়া।

দ্য থেরাপিউটিক গুডস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (টিজিএ) বুধবার জানায়, লিম্ফব্লাস্টিক লিউকেমিয়ায় আক্রান্ত শিশু ও অল্প বয়সী তরুণ এবং লিম্ফোমায় আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য সিএআর-টি থেরাপি অনুমোদন করা হয়েছে।

ক্যানসার কোষের বিরুদ্ধে লড়াই ও সেসব নির্মূল করতে প্রতিরোধ কোষকে প্রশিক্ষণ দেয় সিএআর-টি থেরাপি। এ জন্য একজন রোগীর কাছ থেকে প্রতিরোধ কোষ সংগ্রহ করে জিনগতভাবে পরিবর্তনের পর পুনরায় শরীরে প্রবেশ করানো হয়।

নতুন এ চিকিৎসা পদ্ধিত অনুমোদনের আগে গুরুতর ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে যারা অন্য সব পদ্ধতি প্রয়োগ করেও কোনো ফল পেতেন না তারা চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতেন।

ডেনিয়েল ক্লার্ক (৪৫) নামে একজন জানান, তিনি লিম্ফোমার জন্য সিএআর-টি চিকিৎসা নিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। পরে এক মাসের মধ্যে তার ক্যানসার নাই হয়ে যায়।

ওষুধ উৎপাদনকারী বৃহৎ প্রতিষ্ঠান নোভারটিস এ থেরাপি পদ্ধতির মালিক এবং বৈশ্বিক চাহিদা মেটাতে তারা ইতিমধ্যে উৎপাদন বাড়িয়ে দিয়েছে।

তবে সিএআর-টি থেরাপিকে ‘ওষুধ’ হিসেবে শ্রেণিবদ্ধ করা হয়নি। যার ফলে অস্ট্রেলিয়ায় এবিষয়ে রোগীরা সরকারি ভর্তুকি পাবেন না। সেখানে এ চিকিৎসা নিতে খরচ হবে পাঁচ লাখ ৯৮ হাজার অস্ট্রেলিয়ান ডলার।

অস্ট্রেলিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী গ্রেগ হান্ট যত দ্রুত সম্ভব এ চিকিৎসা পদ্ধতিতে ভর্তুকি চালুর ইচ্ছা দেখিয়েছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here