বাগেরহাটের রামপালে যাত্রীবাহী একটি বাস গাছের সঙ্গে ধাক্কায় উল্টে গিয়ে তিনজন নিহত এবং ১৫ জন আহত হয়েছে।

বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টায় খুলনা-মোংলা মহাসড়কের বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলার সোনাতুনিয়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে দু’জনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- বাসচালকের সহকারী ও মোংলা উপজেলার সরোয়ার হোসেনের ছেলে কামরুল (২৫) এবং জেলার রামপাল উপজেলার তেলিখালী গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে ফেরদৌস (৪২)।

বাগেরহাটের কাটাখালী হাইওয়ে থানার ওসি মলয় রায় জানান, বুধবার দিবাগত রাতে ‘আরাফাত পরিবহন’ নামে একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকা থেকে মোংলায় আসছিল। সোনাতুনিয়া এলাকায় পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে বাসটি রাস্তার পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে যায়। ঘটনাস্থলে দুইজন নিহত এবং ১৬ জন আহত হয়। স্থানীয় হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও একজন মারা যায়।

‘আহতদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ এবং ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে’, বলেন তিনি।

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারি পরিচালক মাসুদ সরদার জানান, খবর পেয়ে বাগেরহাট, খুলনা এবং মোংলার ফায়ার ব্রিগেডের ছয়টি ইউনিট এবং থানা ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতদের মৃতদেহ উদ্ধার করে। দীর্ঘ সময় ধরে চেষ্টা চালিয়ে দুর্ঘটনাকবলিত বাসটিকে সড়কের উপর থেকে সরিয়ে নেয়। দুর্ঘটনার পর থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ওই সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। রেকার দিয়ে বাসটিকে সড়কের ওপর থেকে সরিয়ে নেয়ার পর পুনরায় যান চলাচল শুরু হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here