চীনে আরেকজন কানাডীয় নাগরিককে আটক করা হয়েছে বলে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যে দাবি করেছে তা নাকচ করে দিয়েছে বেইজিং। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবার এক বিবৃতিতে বলেছে, দেশটিতে তৃতীয় কানাডীয় নাগরিককে আটকের ব্যাপারে কোনো তথ্য বেইজিংয়ের কাছে নেই।

বেইজিংয়ে কানাডার দূতাবাসও এখনো কানাডার তৃতীয় নাগরিককে গ্রেফতারের খবর নিশ্চিত করেনি।  কানাডার ওয়েবসাইট ‘ন্যাশনাল পোস্ট’ গতকাল (বুধবার) সেদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানিয়েছিল, চীনা কোম্পানি হুয়াওয়ি’র অর্থনৈতিক বিভাগের প্রধান মেং ওয়াংঝুকে কানাডায় গ্রেফতারের জের ধরে সৃষ্টি উত্তেজনার মধ্যে চীন সরকার কানাডার আরেকজন নাগরিককে আটক করেছে।

এর আগে গত সপ্তাহে চীনা নিরাপত্তা বাহিনী সেদেশের নিরাপত্তা বিরোধী তৎপরতা চালানোর অভিযোগে কানাডীয় নাগরিক মাইকেল স্পাভারকে আটক করে। তারও আগে চীনের পুলিশ সেদেশের একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে কর্মরত আরেক কানাডীয় নাগরিক মাইকেল কোভ্রিগকে গ্রেফতার করেছিল।

দু’সপ্তাহ আগে আমেরিকার আহ্বানে সাড়া দিয়ে কানাডার পুলিশ মেং ওয়াংঝুকে আটক করার পর চীনের সঙ্গে কানাডা ও আমেরিকার সম্পর্কে উত্তেজনা দেখা দেয়।

তবে মঙ্গলবার কানাডার একটি আদালত ৫৭ লাখ ডলারের বিনিময়ে ওয়াংঝুকে জামিনে মুক্তি দিলেও তারা কানাডা ত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। কিন্তু বেইজিং হুয়াওয়ি’র ওই নারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রত্যাহার করে তার পূর্ণ মুক্তির দাবি জানিয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here