আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী নেটওয়ার্ক আল-কায়েদার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট উগ্র গোষ্ঠী আশ-শাবাবের সন্ত্রাসীরা রাজধানী মুগাদিসুর প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে দু’টি ভয়াবহ হামলা চালিয়েছে।

সোমালিয়ার পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কঠোর নিরপত্তা বেস্টিত প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ থেকে অর্ধ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মোগাদিসুর জাতীয় থিয়েটার বাইরে একটি নিরপত্তা চৌকিতে প্রথম বিস্ফোরণ ঘটে। এর কয়েক মিনিট পরেই সড়কের কাছে দ্বিতীয় শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এসব ধারাবাহিক বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ১৩ ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

সোমালিয়ার সেনা কর্মকর্তা মেজর মোহাম্মদ হোসেইন রয়টার্সকে জানিয়েছেন, প্রথম আত্মঘাতী গাড়ি বোমাটি নিরাপত্তা চৌকিতে বিস্ফোরিত হলে পাঁচ ব্যক্তি নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে প্রায় সবাই সৈন্য। এছাড়া, আরো চার জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে কয়েক জনের অবস্থা গুরুতর। দ্বিতীয় বোমা বিস্ফোরণের ফলে সৃষ্ট ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে এখনো কিছু বলা যাচ্ছে না। এদিকে, পুলিশ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে একজন আইনপ্রণেতা, মুগাদিসুর উপ-মেয়র এবং কর্নেল পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তাও রয়েছেন।

দ্বিতীয় বোমা বিস্ফোরণের পর একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন যে তিনি অন্তত দুই ব্যক্তির লাশ দেখতে পেয়েছেন। আশ-শাবাব জানিয়েছে, প্রথম বোমা বিস্ফোরণের ফলে হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করতে যাওয়া নিরাপত্তা কর্মীদের টার্গেট করে দ্বিতীয় বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here