অনেকেই অভিনয়ের আঙ্গিনায় আসেন। কেউ ধীরে চলায় বিশ্বাসী আবার কেউবা রাতারাতি তারকাখ্যাতি অর্জনে মরিয়া হয়ে উঠেন। ভারতের দিল্লী’তে জন্মনেয়া আফ্রি সেলিনা বাংলাদেশের অভিনয়ের আঙ্গিনার সম্ভাবনাময়ী অভিনেত্রী। তিনি ধীর চলায় বিশ্বাসী। সময়ের পথচলায় তার স্বপ্নের বাঁকের বদল হয়েছে। আর এই বাঁক বদলের কারণেই আত্নপ্রত্যয়ী আফ্রি সেলিনা নিজেকে একজন পরিপূর্ণ অভিনেত্রীরূপে প্রতিষ্ঠায় মগ্ন। শুরুটা হয়েছিলো তার ওমেন্স ওয়ার্ল্ড’র ফটোশ্যুট দিয়ে। তারপর একই প্রতিষ্ঠানের ব্র্যা- এ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ। এরপর মডেল হিসেবে কাজ করলেও অভিনয়ের প্রতিই তার আগ্রহ বেড়ে যায়। প্রবলভাবে। একটি দুটি করে করে তিনটি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি।

কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ইউরোপে শুটিং করে আসা রেই’র নির্দেশনায় নির্মিত ৩৬ পর্বের ধারাবাহিক ‘টিংটিং’ নিয়ে মাত্রারিক্ত আশাবাদী এই তন্বী তরুণী অভিনেত্রী। আগামী বছর প্রচার শুরু হবে এই ধারাবাহিকটি নেটফ্লিক্সে।

এই ধারাবাহিকে আফ্রিকে দেখা যাবে রিমা চরিত্রে। ধারাবাহিকটির সিনেমাটোগ্রাফার ক্লিন্ট’র প্রশংসা করে আফ্রি সেলিনা বলেন,‘ টিংটিং আমার অভিনয় জীবনের অন্যতম একটি প্লাটফরম হতে যাচ্ছে। আমি এই ধারাবাহিকটির প্রচারের অপেক্ষা নিয়ে ভীষণরকম উচ্ছসিত। ক্লিন্ট আমি’সহ আমরা যারা এতে অভিনয় করেছি প্রত্যেকের কাজই অনেক .যত্ন নিয়ে মনোযোগ দিয়ে করেছেন। কমেডি ঘরানার এই ধারাবাহিকটি প্রচারে আসলে আমার বিশ্বাস আমার অভিনয়ে দর্শক নিঃসন্দেহে খুশি হবেন, এটা আমার ভীষণ রকম আত্নবিশ্বাসের জায়গা থেকে বলা।’

আফ্রি সেলিনার জন্ম দিল্লীতে হলেও সেই পাঁচ বছর বয়সে তিনি বাংলাদেশে চলে আসেন। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তের বিপরীতে নাঈম তালুকদারের ‘অন্যপথ’। তবে এর কাজ এখনো শেষ হয়নি। অনন্য মামুন নির্দেশিত আনিসুর রহমান মিলনের বিপরীতে ‘রোমান্স’ চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন তিনি। এই চলচ্চিত্রের কিছু অংশের কাজ বাকী। কলকাতায় ‘স্মৃতিমালা’ নামের একটি শর্টফিল্মেও অভিনয় করেছিলেন তিনি। যেহেতু কলকাতা থেকে তিনি নাচের উপর ডিপ্লোমা কোর্স করেছেন তাই সেখানেও তার বেশ জানা শুনা। সেখান থেকেও কাজের প্রস্তাব আসে তার প্রায়ই। ইদ্রিস হায়দার নির্দেশিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘নীল ফড়িং’র কেন্দ্রীয় চরিত্রের অভিনেত্রী আফ্রি সেলিনা। চলচ্চিত্রকে ঘিরে তার মধুর অপেক্ষার প্রহর কবে শেষ হবে সেটা আফ্রি নিজেও জানেন না। তবে মনেপ্রাণে তিনি চান তার অভিনীত চলচ্চিত্রগুলো মুক্তি পাক শিগগিরই। একজন সত্যিকারের শিল্পীকে কতোটা সংগ্রাম করে দর্শকের মনের মনিকোঠায় স্থান করে নিতে হয় তা আফ্রি সেলিনা’র জীবনের গল্পে কিছুটা হলেও আঁচ করা যায়।

চলতি বছর ভালোবাসা দিবসে ফাহমিদা নবী ও বাপ্পা মজুমদারের গাওয়া ‘হাতে হাত রেখে’ গানে আফ্রি সেলিনার প্রাণবন্ত অভিনয় মুগ্ধ করে দর্শককে। তবে আসিফের ‘আগুন’ গানে তার নান্দনিক উপস্থিতি তাকে আলোচনায় নিয়ে আসে। একই শিল্পীর ‘দুই দু’বার করে’ গানেও একজন মডেল হিসেবে প্রশংসিত হন তিনি। আফ্রি সেলিনার প্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান, আর পছন্দের প্রিয় মডেল নোবেল। এরইমধ্যে আফ্রি সেলিনা মিনারের একটি নতুন গানের মিউজিক ভিডিওর মডেল হিসেবে কাজ করেছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here