বছরের একেবারে গোড়ার দিকে আজ শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) বলিউডে মুক্তি পেয়েছে রণবীর সিং ও সারা আলী খান অভিনীত ছবি ‘সিম্বা’। সদ্য বলিউডে পা রাখা সারা এবং রণবীরের বছরের শেষ ছবি হিসেবে ‘সিম্বা’ অনেক দিন ধরে আলোচনায়। কিন্তু বছরের শেষ ছবি হিসেবে কতটা চমক দিতে পেরেছে ছবিটি?

‘সিম্বা’র রেশ টানা হয়েছে অজয় দেবগণ অভিনীত সুপারহিট ছবি সিরিজ ‘সিংহাম’ থেকে। সিংহাম ও সিম্বা-দুটোই পরিচালনা করেছেন রোহিত শেঠি। ‘সিম্বা’র গল্প গড়ে উঠেছে সংগ্রাম ভালেরাও আকা সিম্বা ( রণবীর সিং) নামের এক অসৎ ও দুর্নীতিবাজ পুলিশ কর্মকর্তাকে ঘিরে, যিনি পুলিশ কর্মকর্তা বাজীরাও সিংহাম ( অজয় দেবগণ) দ্বারা অনুপ্রাণিত। সিম্বার দায়িত্ব বর্তায় মহারাষ্ট্রের শিবগড় পুলিশ স্টেশনে। তিনি সবসময় ক্ষমতার অপব্যবহার করে অর্থ-সম্পদ গড়ায় বিশ্বাসী। কুখ্যাত গ্যাংস্টার দুর্ব রানাদের( সনু সোদ) বিভিন্ন অপকর্মে সাহায্য করেও নিজের পকেট ভারী করেন। পাগলাটে ও বেপরোয়া চরিত্রের হলেও সিম্বা বেশ নরম মনের। ঘটনাক্রমে তাঁর পরিচয় হয় শাগুন সাথির ( সারা আলী খান) সঙ্গে। শাগুনের সঙ্গে পরিচয়ের পর তিনি আরও বেপরোয়া ও বিলাসি হয়ে উঠেন। এমন সময় এক কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি হন সিম্বা। বদলে যেতে শুরু করে তাঁর জীবন। ছবির গল্প মোড় নেয় ভিন্ন দিকে।

বেশ গতানুগতিক গল্পের ছবি হলেও, ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর ইতিবাচক পর্যালোচনায় উঠে এসেছে ‘সিম্বা’র গুণকীর্তন। যদিও তাঁরা বলছে, এই ছবির চিত্রনাট্যের সঙ্গে তেলেগু ছবি ‘টেম্পার’ এর মিল রয়েছে। তবে ছবির সংলাপ, শিল্পীদের অভিনয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই। বিশেষ করে ‘সিম্বা’ চরিত্রে রণবীর সিং-এর দুর্দান্ত মানিয়ে নেওয়া। সেই সঙ্গে সারা আলী খান ও সনু সুদের পরিশীলিত অভিনয়ের প্রশংসাও ঝরেছে।

‘হিন্দুস্তান টাইমস’ অভিনয়শিল্পীদের পাশপাশি রোহিত শেঠির নির্মাণশৈলীর প্রশংসা করেছে। ভারতীয় এই সংবাদমাধ্যম জানায়, ‘সিম্বা’-তে রোহিত তাঁর ‘সিংহাম’ ছবিকে ছাড়িয়ে গেছেন। চমকপ্রদ সংলাপ, অ্যাকশনে ঠাসা গল্প, প্রেম ও দুর্নীতির সংমিশ্রণে এই ছবিকে সালমানের ‘দাবাং’ এর চেয়ে অনেকগুণ ভালো বলে উল্লেখ করা হয়। সব মিলিয়ে ‘সিম্বা’ সপ্তাহ শেষে ডিসেম্বরের এই ঠাণ্ডা বক্স অফিস কতটা গরম করতে পারে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here