প্রথম ফিলিস্তিনি-আমেরিকান কংগ্রেসওম্যান হিসেবে শপথ নিয়েছেন রাশিদা তালিব। যুক্তরাষ্ট্রের ১১৬তম কংগ্রেসে যে দুজন মুসলিম নারী নির্বাচিত হয়েছেন রাশিদা তাদের একজন। বৃহস্পতিবার কংগ্রেসে এই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

মিশিগান থেকে নির্বাচিত ডেমোক্রেট প্রতিনিধি তার মায়ের হাতে সেলাই করা ঐতিহ্যবাহী ফিলিস্তিনি পোশাক পড়ে শপথ নেন। এদিন রাশিদা কুরআনে হাত রেখে শপথ নেন। ১৭৩৪ সালে ইংরেজি অনুবাদ করা ওই কুরআনের মালিক ছিলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট থমাস জেফারসন। যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় প্রেসিডেন্ট জেফারসনের কুরআনটি কংগ্রেসের লাইব্রেরিতেই সংরক্ষিত ছিল।

কুরআন নিয়ে শপথের বিষয়ে রাশিদা বলেন, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ অনেক মার্কিনি মনে করেন যে ইসলাম মার্কিন ইতিহাসে বহিরাগত, কিন্তু মুসলিমরা শুরু থেকেই এখানে ছিল।

তিনি বলেন, আমার অস্তিত্ব এমনকি আমার মুসলিম বিশ্বাস, তাদের জন্য সমস্যার কারণ হবে, সেটা কুরআন নিয়ে বা ছাড়া শপথ করলেও। এর আগে ২০০৭ সালে কুরআন হাতে শপথ নেন প্রথম মুসলিম কংগ্রেসম্যান কিথ এলিসন। তবে এরপরই চরম ডানপন্থীদের সমালোচনার শিকার হন তিনি।

রাশিদার সঙ্গে বৃহস্পতিবার আরও একজন মুসলিম নারী কুরআনে হাত রেখে শপথ নেন। তিনি হচ্ছেন মিনেসোটা থেকে নির্বাচিত ইলহান ওমর। তারা দুজনই হচ্ছে প্রথম মুসলিম নারী যারা কংগ্রেসওম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু রাশিদাই একমাত্র প্রতিনিধি নন, যিনি ঐতিহ্যবাহী পোশাকে শপথ নেন। বৃহস্পতিবারের ওই শপথ অনুষ্ঠানে নেটিভ-আমেরিকান ডেব হাল্যান্ডও তাদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পড়েছিলেন।

উল্লেখ্য, কংগ্রেসের চলতি প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্রেট-রিপাবলিকান মিলিয়ে ১০২ জন নারী সংসদ সদস্য রয়েছেন। যা মার্কিন কংগ্রেসের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। তাদের মধ্যে ৪৩ জন অশ্বেতাঙ্গ। আর প্রথমবার নির্বাচিত হয়েছেন এমন নারী সংসদ সদস্যের সংখ্যা ৩৬।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here