দীপিকার জন্ম হয় ১৯৮৬ সালে ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে। পরবর্তীকালে দীপিকার পরিবার বেঙ্গালুরুতে চলে আসে ঠিকই, তবে দীপিকা জন্মসূত্রে ডেনমার্কের নাগরিক। বিয়ের পর দীপিকা অবশ্য নাগরিকত্ব বদলাবেন কিনা জানা নেই।

২০০৬ সালে কন্নড় ছবি ‘ঐশ্বর্য’-তে অভিনয়ের মাধ্যমে দীপিকা প্রথম অভিনয় জীবনে পা রাখেন।

দীপিকা লিরিল সাবানের একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্য়মে প্রথম পরিচিতি লাভ করেন। যে সাবান ব্র্যান্ডটির বিপণন দূত ছিলেন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন।

লেখালিখি, সব জিনিস পরিস্কার পরিচ্ছন্ন সাজিয়ে গুছিয়ে রাখতে পছন্দ করেন দীপিকা। সে যেকোনও ক্ষেত্রে বলার চেয়ে সবার বক্তব্য শুনতে বেশি পছন্দ করেন। দক্ষিণ ভারতীয় সংস্কৃতিতে বড় হয়েছেন বলেই তিনি এমন বলে দাবি করেন অভিনেত্রী।

দীপিকা খ্যাতনামা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় প্রকাশ পাড়ুকোনের কন্য়া, দিপ্পি নিজেও জাতীয় স্তরের ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়, একথা অনেকেই জানেন। তবে দীপিকা যে রাজ্যস্তরের বেস বল খেলোয়াড়ও ছিলেন, একথা হয়ত অনেকেরই জানা নেই।

প্রথমে তার সঞ্জয়লীলা বনশালি `সাওয়ারিয়া` দিয়েই বলিউডে পা রাখার কথা ছিল, তবে পরে বনশালি এই ছবির জন্য অনিল কন্যা সোনম কাপুরকে বেছে নেন।

ঘটনাচক্রে `সাওয়ারিয়া` ও দীপিকার প্রথম বলিউড ফিল্ম `ওম শান্তি ওম` একই দিনে মুক্তি পায়।

দীপিকাই প্রথম বলিউড অভিনেত্রী, যার পরপর চারটি ছবি ১০০ কোটির ব্যবসা ছাড়িয়েছে। রেস২, ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি, চেন্নাই এক্সপ্রেস, রামলীলা।

দীপিকা কিংবদন্তি অভিনেতা গুরু দত্ত-এর আত্মীয়, গুরু দত্তের আসল নাম বসন্ত পাড়ুকোন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here