লক্ষ্য মাত্র ৬৪ রানের। তাই কোনও ঝুঁকি নেয়নি রংপুর রাইডার্স। শুধুমাত্র ক্রিস গেইলের উইকেটটি হারিয়ে পেয়েছে এবারের বিপিএলের টানা দ্বিতীয় জয়। বোলিংয়ে কুমিল্লাকে গুঁড়িয়ে দিয়ে ১২ ওভারে মাশরাফিরা নিশ্চিত করেছে ৯ উইকেট বড় জয়।

ষষ্ঠ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয় রংপুর রাইডার্স এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রংপুর দলপতি মাশরাফি। ব্যাটিংয়ে নেমে মাশরাফির বোলিং তোপে পড়ে স্টিভ স্মিথের কুমিল্লা ১৬.২ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে গুটিয়ে যায় ৬৩ রানের মাথায়। টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেন ম্যাশ। ৬৪ রানের মামুলি টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ১২ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে রংপুর।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে কুমিল্লার ওপেনার তামিম ইকবাল (৪), এভিন লুইস (৮), ইমরুল কায়েস (২) আর স্টিভ স্মিথ (০) দ্রুত সাজঘরে ফেরেন। চার টপঅর্ডারকে ফিরিয়ে দেন মাশরাফি। এরপর শোয়েব মালিক (০), এনামুল হক বিজয় (২), মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন (৭) ফিরে গেলে বিপাকে পড়ে কুমিল্লা। শহীদ আফ্রিদি ১৮ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২৫ রান। শেষ দিকে ব্যাটিংয়ে আসা মেহেদি হাসান ৬ আর আবু হায়দার রনি করেন ৫ রান।

মাশরাফি ৪ ওভারে ১ মেডেন নিয়ে ১১ রান খরচায় তুলে নেন চারটি উইকেট। শফিউল ইসলাম দুটি, নাজমুল ইসলাম অপু তিনটি, ফরহাদ রেজা একটি করে উইকেট তুলে নেন। বেনি হাওয়েল ৩ ওভারে খরচ করেন মাত্র ৬ রান।

৬৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নামেন রংপুরের ক্যারিবীয়ান ওপেনার ক্রিস গেইল এবং মেহেদি মারুফ। এটাই গেইলের এই আসরে প্রথম ম্যাচ ছিল। এনওসি না পাওয়ায় দলের সঙ্গে যোগ দিলেও আগের দুটো ম্যাচ খেলা হয়নি গেইলের। তৃতীয় ওভারে বিদায় নেন ৫ বলে ১ রান করা গেইল। আবু হায়দার রনি ফিরিয়ে দেন ক্যারিবীয়ান তারকাকে।

আরেক ওপেনার মেহেদি মারুফ ৩৯ বলে ৩৬ এবং তিন নম্বরে নামা রিলে রুশো ২৮ বলে ২০ রান করে অপরাজিত থাকেন। কুমিল্লার একমাত্র উইকেটটি নেন রনি। মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ শহীদ আর শহীদ আফ্রিদি, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, স্টিভ স্মিথ কোনো উইকেট পাননি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here