বিপিএলের (বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ) এবারের আসরে (৬ষ্ঠ আসরে) বেশ কিছু নতুনত্ব নিয়ে হাজির হবার কথা বলেছিল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। তবে নির্বাচনের পরপরই শুরু হওয়া বিপিএল নিয়ে শুরু থেকেই সমালোচনা হচ্ছে বিস্তর।

ধারাভাষ্যকারদের নিম্নমানের ধারাভাষ্য, ব্রডকাস্টিংয়ে হাস্যকর কিছু ভুল চোখে লেগেছে। সেখান থেকে উত্তরণের পথ খুঁজে ফিরেছে কর্তৃপক্ষ।

দুই দিন আগে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যসচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলেছিলেন, ‘প্রডাকশনের ভুল নয়, ধারাভাষ্যকাররা দু-একটা ভুল করেছেন, আর একটা লেখায় ভুল (খালেদ আহমেদের বয়স ১১৯), এমন বড় কোনো ভুল নয়। ধারাভাষ্যকাররা তো মানুষ। এখানে দেশি-বিদেশি যারা ধারাভাষ্য দিচ্ছেন তারা দীর্ঘ সময় ধরে বিভিন্ন দেশে ধারাভাষ্য দিচ্ছেন। এটা প্রডাকশনের ভুল নয়। ৩৫ ক্যামেরা, ড্রোন, স্পাইডার ক্যাম, আম্পায়ারের হেড ক্যাম, প্রযুক্তির দিক দিয়ে এখানে কোনো ভুল নেই। যে সমালোচনা হয়েছে ধারাভাষ্যকারের শব্দ চয়নে ভুলের কারণে হয়েছে।’

তিনি বলেছিলেন, ‘গ্রাফিকসে যে ভুলগুলি আছে, আমরা স্বীকার করে নিচ্ছি। চেষ্টা করব ঠিক করার। ধারাভাষ্যকার প্যানেলে আমরা পরিবর্তন আনার চেষ্টা করছি। সামনে ড্যারিল কালিনান, ড্যানি মরিসন আসবে। যারা বারবার ভুল করবে, তারা থাকবে না প্যানেলে।’

হয়েছেও তেমনটা, প্যানেল থেকে বাদ পড়েছেন ঢাকা ডায়নামাইটকে ঢাকা রাইডার্স, মাশরাফি বিন মর্তুজাকে মুশরাহ মুর্তজা, মুশফিকুর রহিমকে মুশিকার রহিম বলা টিনো বেস্ট। তার জায়গা পূরণ করবেন জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ড্যানি মরিসন। অচিরেই আসবেন ড্যারিল কলিনান।

এছাড়া মঙ্গলবার সিলেট পর্ব থেকে থাকছে ‘জিংবেল’। বিসিবির মিডিয়া কমিটির পরিচালক জালাল ইউনুস তেমনটাই জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য গত শুক্রবার থেকে এসেছে আল্ট্রা এজ প্রযুক্তি। শুরুতে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) আছে কিন্তু স্নিকো মিটার বা আল্ট্রা এজ নেই বলে বিসিবিকে কম সমালোচনা শুনতে হয়নি।

আল্ট্রা এজ, পছন্দসই ধারাভাষ্যকারদের প্যানেল, জিংবেল সব একসাথে থাকছে সিলেট পর্ব থেকে। এখন মাঠের ক্রিকেটটাও গত দুই দিনের মতো জমজমাট হলেই খুশি হবে সমর্থকরা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here