বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) তেমন রান পাচ্ছেন না তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুশফিকুর রহীম, একটি করে ম্যাচ জয়ী ইনিংস খেললেও পুরো টুর্নামেন্টে তাদের পারফরমেন্সও আহামরি নয়। তবে বিশ্বকাপের আগে এসব তারকা ক্রিকেটারদের ফর্ম হীনতা নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন জাতীয় দলের হেড কোচ স্টিভ রোডর্স।
বিপিএল’এর শিষ্যদের পারফরম্যান্স বিশ্বকাপের দল নির্বাচনে খুব একটা প্রভাব রাখবে না বলে মনে করেন তিনি। বিপিএল শেষে নিউজিল্যান্ড সফরে তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। এরপর আয়ারল্যান্ডে আছে ত্রিদেশীয় সিরিজ। আর মে মাসের শেষদিকে ইংল্যান্ডে বসবে বিশ্বকাপ আসর। কিন্তু বিপিএল’র মাঝেও বিশ্বকাপ প্রসঙ্গটা উঠছে প্রতিনিয়তই। সিলেটে গতকাল রোডসকেও কথা বলতে হয়েছে বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে।

সাংবাদিকদের রোডস বলেন, ‘আমার মনে হয় না বিপিএল’র পাফরম্যান্স থেকে আমাদের বেশি কিছু নেয়ার আছে, সেটা খেলোয়াড়রা ভালো করুক কিংবা না করুক। ওয়ানডের থেকে এটা পুরোপুরি ভিন্ন একটা ফরম্যাট।

আপনি জানেন, পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচে সমপ্রতি আমরা বেশ ভালো করছি। আমরা আশা করবো, আমাদের খেলোয়াড়রা এখানে পারফরম করবে। তারাও এমনটাই আশা করবে। এটা বিশ্বকাপের দল নির্বাচনে খুব একটা প্রভাব রাখবে না। কিন্তু এটা ক্ষতিও করবে না। টিভি, দর্শক, নির্বাচক, সতীর্থ, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা খেলোয়াড়দের সামনে এই টুর্নামেন্টে যদি আপনি ভালো করতে পারেন, তাহলে এটা ভালো কিছু হতে পারে।’ বিপিএল বেশ উত্তেজনাপূর্ণ হচ্ছে বলেই মনে করছেন বাংলাদেশের ইংলিশ কোচ, ‘প্রথমবারের মতো কোনো টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট দেখার সুযোগ হয়েছে আমার। আমার মনে হয়, এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টটা বেশ উত্তেজনাপূর্ণই হচ্ছে, বেশ ভালো ক্রিকেট হচ্ছে। অনেক সময় ভালো উইকেট ভালো ম্যাচ হতে সাহায্য করে। আবার উইকেট ভালো না হলে ম্যাচ বেশ কঠিন হয়। সব মিলিয়ে টুর্নামেন্টটা বেশ উত্তেজনাপূর্ণই হচ্ছে।’
স্থানীয় ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স নিয়ে রোডসের মূল্যায়ন, ‘আমাদের নিজেদের খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স ওঠা-নামা করছে কিছুটা। কেউ কেউ সত্যিই খুব ভালো খেলছে। আমার মনে হয়, কিছু বোলার খুব ভালো করছে, বিশেষ করে, তাসকিন, শফিউল এবং আরো কয়েকজন। স্পিনাররাও ভালো করছে। তারা আমাদের স্পিনের গভীরতা দেখিয়েছে।’ ‘ব্যাটসম্যানরাও অনেক সময় ভালো করছে। লিটন বেশ ভালো একটি ইনিংস খেলেছে, মুশফিক মিরপুরে রান তাড়ায় চমৎকার খেলেছে। স্থানীয় খেলোয়াড়দের জন্য ভালো করা সব সময় খুব সহজ নয়, কারণ এখানে অনেক বিদেশি খেলোয়াড় আছে, স্থানীয়রা তাই খুব বেশি সুযোগ পায় না। আমার মনে হয় টুর্নামেন্টের পরের দিকে আরো ভালো পারফরম্যান্স হবে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here