গত বছরের ১৬ অক্টোবর বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন থেকে গ্যাসের উৎপাদন, সঞ্চালন ও বিতরণে মূল্য বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন, কমিশনের চেয়ারম্যান, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানসহ চারজনকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

জনস্বার্থে করা এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রবিবার হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই রুল জারি করেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া।

এর আগে ২০১৮ সালের ১৬ অক্টোবর বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন গ্যাসের উৎপাদন, সঞ্চালন ও বিতরণে মূল্য বৃদ্ধি করে। পরে ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে গত রবিবার কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের আহ্বায়ক স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন হাইকোর্টে রিট করেন। সেই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত আজ এ রুল জারি করে।

ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া জানান, অভ্যন্তীরণ সম্পদ সমন্বয় সাধন করেই যে ঘাটতির কথা বলা হয়েছে তা মেটানো যেত। তাছাড়া গ্যাস নিরাপত্তা তহবিলে এখনও সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা ব্যালেন্স রয়েছে। পাশাপাশি ১৯৯৩ সাল থেকে বিদেশ থেকে আমদানকিৃত গ্যাসের ওপর মূল্য সংয়োজন কর এবং সম্পূরক শুল্ক আরোপের বিধি নিষেধ থাকলেও তারা না মেনে গত বছরের মাঝামাঝি জনগণের ওপর থেকে কর ও শুল্কের টাকা কৌশলে আদায়ের জন্য গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here