বিশাল ব্যবধানে এগিয়ে থাকার পরেও ম্যাচ জিততে পারলেন না সেরেনা। প্লিসকোভার কাছে হেরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে তাঁকে। এভাবেও যে ম্যাচে ফিরে আসা যায় তা হয়তো স্বপ্নেও ভাবেননি ক্যারোলিনা প্লিসকোভা নিজেও। তাও আবার নারী টেনিসের সর্বকালের সেরা হিসেবে পরিচিত সেরেনা উইলিয়ামসের বিপক্ষে। শেষ সেটে চার ‘ম্যাচ পয়েন্ট’ পিছিয়ে ছিলেন চেক তারকা। সেখান থেকে ফিরে এসে হারিয়ে দিয়েছেন ২৩ বারের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী সেরেনাকে। ৬-৪, ৪-৬, ৭-৫ গেমে সেরেনা উইলিয়ামসকে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো কোনো গ্র্যান্ড স্লামের সেমিফাইনালে পা দিলেন প্লিসকোভা।

শুরু থেকে অবশ্য প্লিসকোভাই আধিপত্য দেখাচ্ছিলেন ম্যাচে। প্রথম সেটে ৬-৪ গেমে ছিলেন এগিয়ে। কিন্তু এরপর থেকেই স্বরূপে ফিরতে শুরু করেন সেরেনা। প্লিসকোভাকে কোনো সুযোগ না দিয়ে দ্বিতীয় সেট জিতে নেন তিনি। এমনকি তৃতীয় সেটেও ছড়ি ঘোরাতে থাকেন প্রতিপক্ষের ওপর। এগিয়ে যান ৫–১ ব্যবধানে। এমনকি ম্যাচ ৪০:৩০ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে ম্যাচ শেষ করার সুবর্ণ সুযোগও ছিল তার সামনে। কিন্তু ম্যাচ পয়েন্ট ‘সেভ’ করতে পারেননি সেরেনা। উল্টো গেম হারিয়ে বসেন প্লিসকোভার কাছে। এরপরে পায়ে হাত দিয়ে বসে পড়েন সেরেনা। নিজের পুরোনো পায়ের চোট আবারও ফিরে আসে ম্যাচে।

চোটের জন্য অতিরিক্ত সময় নিয়েও আর ম্যাচে ফিরতে পারেননি সেরেনা। বরং নিজেকে পুরোপুরি হারিয়ে বসেন। সে সুযোগটাই কাজে লাগান ষষ্ঠ বাছাই প্লিসকোভা। বাকিটা সময় কোনো সুযোগ না দিয়ে ম্যাচ নিজের করে নেন। শেষপর্যন্ত ৭-৫ ব্যবধানে শেষ সেট জিতে নেন। সন্তান জন্ম হওয়ার পর থেকে সময়টা তেমন ভালো যাচ্ছে না সেরেনার। উইম্বলডন ও ইউএস ওপেনের ফাইনালে হারের পর আজ নিজের ৫০ তম গ্র্যান্ড স্লাম কোয়ার্টার ফাইনালেও হারতে হলো সেরেনাকে। মজার ব্যাপার হচ্ছে প্রথম যেবার গ্র্যান্ড স্লাম কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিলেন সেরেনা (১৯৯৯ সালের ইউএস ওপেন) তখন প্লিসকোভার বয়স ছিল মাত্র ৬!

এই জয়ে অবশ্য প্লিসকোভা নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেলেন। হার্ড কোর্টে প্রায় অপরাজেয় সেরেনাকে তৃতীয়বারের মতো হার্ড কোর্টের গ্র্যান্ড স্লামে (অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ও ইউএস ওপেন) হারানোর রেকর্ড করলেন তিনি। তিনি ছাড়া এ রেকর্ড আছে আর মাত্র একজনের; বড় বোন ভেনাস উইলিয়ামসের। সেমিফাইনালে তিনি মুখোমুখি হবেন নাওমি ওসাকার, যিনি এলিনা ভিতোলিনাকে সরাসরি ৬-৪, ৬-১ সেটে হারিয়েছেন। নারী এককে অন্য দুই সেমিফাইনালিস্ট হলেন ডেনিয়েল কলিনস ও পেত্রা কোভিতোভা।

 

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here