আগামী মাসে পোল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ইরান-বিরোধী সম্মেলন বাতিল করে দিতে পারে আমেরিকা। ওই সম্মেলনে বর্জনকারী দেশের সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ার কারণে মার্কিন সরকার এ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে মার্কিন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

আগামী ১৩ ও ১৪ ফেব্রুয়ারি আমেরিকার উদ্যোগে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত আমেরিকার ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত জনাথন কোহেন মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদকে জানিয়েছেন,পোল্যান্ডের রাজধানী  ওয়ারশ’তে আগামী মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সম্মেলন থেকে ‘ইরানকে দুর্বল করা বা ইরানকে আক্রমণ করা’র কোনো পরিকল্পনা নেয়া হয়নি।

কিন্তু এই ব্যাখ্যা দিয়ে ওয়ারশ’ সম্মেলনের জন্য দল ভারী করা ওয়াশিংটনের পক্ষে সম্ভব হয়নি। কোনো কোনো পশ্চিমা কূটনীতিকের বরাত দিয়ে মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও শেষ মুহূর্তে এই সম্মেলন বাতিল করে দিতে পারেন।

ওয়ারশ’ সম্মেলন অনুষ্ঠিত না হলে তা হবে মাইক পম্পেও’র জন্য বড় ধরনের ব্যর্থতা

এর কারণ হিসেবে কূটনীতিকরা বলছেন, ওয়ারশ’ সম্মেলনে উপস্থিত দেশের সংখ্যা মারাত্মকভাবে কমে যেতে পারে অথবা মার্কিন মিত্ররা তাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের পরিবর্তে নিম্ন পর্যায়ের প্রতিনিধি পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানাতে পারেন।

ওয়ারশ’ সম্মেলনকে ইরানের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হবে না বলে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত দাবি করলেও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও চলতি মাসের গোড়ার দিকে বলেছিলেন, মধ্যপ্রাচ্যে স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠাকে এই সম্মেলনে প্রধান অগ্রাধিকার দেয়া হবে। তিনি দাবি করেন, ইরান যাতে তার ভাষায় ‘মধ্যপ্রাচ্যকে অস্থিতিশীল’ করতে না পারে সে লক্ষ্যে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here