ভেনিজুয়েলায় মার্কিন ষড়যন্ত্রে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ করার পর প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো আমেরিকায় তার দেশের দূতাবাস ও কন্স্যুলেটগুলো বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন।

২৪ জানুয়ারি বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইডো নিজেকে ভেনিজুয়েলার অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করার পর আমেরিকা তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। এরপর মাদুরো এসব পদক্ষেপ নিয়েছেন। এর আগে প্রেসিডেন্ট মাদুরো আমেরিকার সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেন এবং তার দেশ থেকে আমেরিকার সমস্ত কূটনীতিককে দেশে ফেরার জন্য ৭২ ঘন্টার সময়সীমা বেধে দেন।

শুক্রবার সুপ্রিমকোর্টে দেয়া দীর্ষ ভাষণে প্রেসিডেন্ট মাদুরো তার দেশে অভ্যুত্থানের চেষ্টা চালানোর জন্য মার্কিন ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র নিন্দা ও সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, “এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেকে বিশ্বের নেতা মনে করেন এবং এ নীতির আওতায় তিনি ভেনিজুয়েলার ওপর তাদের পছন্দের একটি সরকার চাপিয়ে দিতে চেয়েছিলেন।”

হুয়ান গুয়াইডো নিজেকে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করার পর দেশটিতে ব্যাপক রাজনৈতিক সংকট দেখা দেয় এবং রাশিয়া, চীন, ইরান, তুরস্কসহ বিশ্বের অন্তত ১০টি দেশ মাদুরোর প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here