সালমান খানের প্রেম নিয়ে কেচ্ছার শেষ নেই। ঐশ্বরিয়া রায়, ক্যাটরিনা কাইফ বা লুলিয়া ভান্টুরের গল্প তো সাম্প্রতিক। সঙ্গীতা বিজলানি ও সোমী আলীর কথা অনেকে জানেন। কিন্তু কে জানত- আজকাল নায়কের প্রথম প্রেমিকা নিয়ে কথা হবে।

সেই সূত্রে আসছে শায়েষা সায়গলের নাম। তার সঙ্গে বলিউডের একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রীর আত্মীয়তার সম্পর্ক রয়েছে। অন্য পরিচয় হলো, সালমানের প্রথম প্রেমিকার মেয়ে তিনি।

শায়েষার মা শাহিন বানুও ছিলেন অভিনেত্রী। তিনি বিখ্যাত অভিনেত্রী সায়রা বানুর ভাই সুলতান আহমেদের মেয়ে, অর্থাৎ সায়রা-দিলীপ কুমারের নাতনি শায়েষা। শাহিনের সাবেক স্বামী সুমিত সায়গলও বলিউড অভিনেতা।

প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর সুমিত বিয়ে করেন অভিনেত্রী ফারহাকে। অর্থাৎ, ফারহা হলেন শায়েষার সৎমা।

সালমান খানের কলেজ জীবনের প্রথম প্রেমিকা ছিলেন শাহিন। সায়রা ও দিলীপ কুমারের সঙ্গে এ নায়কের ঘনিষ্ঠতা ছিল সেই সময়।

১৯ বছর বয়সেই শাহিনের সঙ্গে নাকি সালমানের ব্রেক আপ হয়ে যায়। তার পর শাহিন বিয়ে করেন সুমিতকে।

তাদের মেয়ে শায়েষা মুম্বাইয়ের ইকোলে মণ্ডল স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। কোনো দিন ৯০ শতাংশের কম নম্বর পাননি বলেন জানান এক সাক্ষাৎকারে।

সালমান চেয়েছিলেন শায়েষাকে বলিউডে ব্রেক দিতে। তার আগেই অভিনয় ও বিজ্ঞাপন সূত্রে তিনি পরিচিতি পেয়েছেন। একটি গয়নার দোকানের বিজ্ঞাপনের কারণে ইতিমধ্যেই পরিচিত মুখ শায়েষা। বলিউডেও দেখা যেতে পারে তাড়াতাড়ি। এর আগে অজয় দেবগণের ‘শিবায়ে’ ছবিতে অভিনয় করেন।

অবশ্য শায়েষার প্রথম ছবি তামিল, নাম ‘অখিল’। সিনেমাটি বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল।

জানা গেছে, সালমান অত্যন্ত খেয়াল রাখেন সাবেক প্রেমিকার মেয়ের দিকে। এক পার্টিতে একসঙ্গে দেখাও গিয়েছে তাদের। ভাইজান নাকি ঘনিষ্ঠ মহলে বলেছেন, শায়েষাকে দেখলেই অল্প বয়সের শাহিনের কথাই মনে পড়ে যায়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here