ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে মঙ্গলবার পেপ গার্দিওলার ১০০তম ম্যাচটি জয়ে রাঙাতে চেয়েছিল ম্যানচেস্টার সিটি। সার্জিও আগুয়েরোর গোলে শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল দলটি। কিন্তু শেষ হলো হতাশা নিয়ে। নিউক্যাসলের বিপক্ষে ১৩ বছর পর হেরে মাঠ ছাড়তে হয়েছে গার্দিওলার শিষ্যদের। স্বাভাবিকভাবেই মন খারাপ দলটির।

নিউক্যাসলের মাঠে বল গড়ানোর ২৫ সেকেন্ডের মাথাতেই গোল করেন আগুয়েরো। ম্যাচের শেষার্ধ পর্যন্ত এগিয়ে ছিল দলটি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে হেরেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে গার্দিওলার শিষ্যদের।

এই ম্যাচ জিতে শীর্ষে থাকা লিভারপুলের সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধান ১-এ নামিয়ে আনার সুযোগ ছিল সিটির। তা আর হলো কই! উল্টো আজ রাতে লেস্টার সিটির সঙ্গে ঘরের মাঠে জিতে গেলে সমান ম্যাচে লিভারপুলের লিড দাঁড়াবে ৭-এ। এখন ২৩ ম্যাচে লিভারপুলের ৬০ পয়েন্ট, ২৪ ম্যাচে সিটির ৫৬।

মঙ্গলবার রাতের ম্যাচটি ছিল সিটির কোচ হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে গার্দিওলার শততম ম্যাচ। ম্যাচের শুরুটাও সিটির জন্য এর চেয়ে ভালো আর হতে পারত না, মাত্র ২৪ সেকেন্ডের মাথায় গোল করে দলকে লিড এনে দেন সার্জিও আগুয়েরো।

প্রিমিয়ার লিগে নিউক্যাসলের বিপক্ষে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের গোলসংখ্যা বেড়ে হলো ১৫টি। চলতি মৌসুমে লিগে এটিই (২৪ সেকেন্ড) সবচেয়ে দ্রততম গোল। আর ২০১৩ সালের নভেম্বরের পর লিগে সিটির দ্রুততম গোল। পাঁচ বছর আগে টটেনহামের বিপক্ষে ১৩ সেকেন্ডে গোল করেছিলেন জেসুস নাভাস।

পরে কেভিন ডি ব্রুইনের ফ্রি-কিক থেকে আগুয়েরো আরেকবার বল জালে জড়িয়েছিলেন। কিন্তু গোলটা বাতিল করে দেন রেফারি। কারণ রেফারি সংকেত দেওয়ার আগেই ফ্রি-কিক নিয়েছিলেন ডি ব্রুইন। যে কারণে বেলজিয়ান মিডফিল্ডারকে হলুদ কার্ডও দেখতে হয়।

বিরতির পর পাল্টে যায় ম্যাচের চিত্র। ৬৬ মিনিটে নিউক্যাসলকে সমতায় ফেরান সলোমন রনডন। আর ৭৮ মিনিটে সিটির ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ফার্নানদিনহো নিউক্যাসলের শেন লংস্টাফকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় স্বাগতিকরা। পেনাল্টি থেকে স্বাগতিকদের জয়সূচক গোলটি করেন ম্যাট রিচি। শেষ ত্রিশ মিনিটে অন টার্গেটে একটি শটও নিতে পারেননি সিটির খেলোয়াড়রা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here