প্রিমিয়ার লিগে একই রাতে দুই রকম অভিজ্ঞতা হলো দুই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটি ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। নিউক্যাসলের বিপক্ষে শুরুতে এগিয়ে গিয়েও হেরেছে সিটি। আর ইউনাইটেড বার্নলির সঙ্গে ৮৬ মিনিট পর্যন্তও ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকে শেষ পর্যন্ত ২-২ ব্যবধানে ড্র করেছে।

একেবারে যেন নাটকের গল্পই উপহার দিয়েছে ম্যানইউ। সঙ্গে গানার যুগে টানা নয় ম্যাচ অপরাজিত থাকলো তারা। গল্পের নায়ক সেই পল পগবা আর ভিক্টোর লিনডেলফ।

গল্পের শুরুটা ম্যানইউ’র ডিফেন্ডারের ভুলে। ৫১ মিনিটে বল দখলের লড়াই জিতে জ্যাক কর্ক ডি বক্সের ভেতরে বল এগিয়ে দেন বার্নলির নাম্বার টেন অ্যাশলে বার্নসকে। বাঁ পায়ের বুলেট শটে বল জালে জড়িয়ে ওল্ড ট্রাফোর্ড শিবির চমকে দেন বার্নস।

নাটকটা আরও জমজমাট হয় ৮০ মিনিটে। এবারও ব্যবধান দ্বিগুণ করলো বার্নলি। অ্যাশলে ওয়েস্ট উডের চিপ থেকে হেড করে ম্যানইউ গোলরক্ষক গিয়াকে বোকা বানান ক্রিস উড।

তারপরেই যেন ম্যাচ হারার প্রহর গুনছিল ম্যানইউ। না গল্পটা ভিন্নভাবে লিখতে শুরু করলেন গানার শিষ্যরা। ৮৯ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান কমান পগবা। আর ম্যাচের যোগ করা সময়ে গোল করে সমতায় ফিরিয়ে ম্যাচের রোমাঞ্চ ছড়ান ভিক্টর নিলসন। পরে অবশ্য ওই ড্রয়ের স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

ম্যাচটা জিততে পারলে হয়তো পয়েন্ট টেবিলে চেলসি-আর্সেনালের সঙ্গে থাকতে পারতো ম্যানইউ। এখন দুই পয়েন্ট কমে ছয়ে অবস্থান করতে হচ্ছে। অবশ্য এ ড্রয়ে লাভ বেশি বার্নলেরই হয়েছে। অবনমন শঙ্কা কেটে যাচ্ছে। আছে ১৫ নম্বর স্থানে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here