নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে উড়ছিল সফরকারী ভারত। বিরাট কোহলির নেতৃত্বে টিম ইন্ডিয়া প্রথম তিন ম্যাচেই জিতেছিল। দুর্দান্ত সব জয়ে দুই ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ নিশ্চিত করা ভারতের নিয়মিত অধিনায়ক কোহলি বিশ্রামে চলে যান। দলপতির দায়িত্ব দেওয়া হয় ক্রিকেটের ইতিহাসে ৭৯তম খেলোয়াড় হিসেবে ২০০তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নামা রোহিত শর্মাকে। বিশ্রামে ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩০.৫ ওভারে ভারত গুটিয়ে যাওয়ার আগে তোলে মাত্র ৯২ রান। জবাবে, মাত্র ১৪.৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড। ৮ উইকেটের বড় জয় পাওয়ায় অন্তত হোয়াইটওয়াশ হতে হচ্ছে না ঘরের মাঠে খেলতে নামা কিউইদের। শেষ ম্যাচের আগে সিরিজে ৩-১ এ এগিয়ে টিম ইন্ডিয়া।

এই ম্যাচটি জিতলে ৫২ বছরের ইতিহাস পাল্টে দিতে পারতো ভারত। নিউজিল্যান্ডে কখনোই ভারত এত বড় ব্যবধানে সিরিজ জেতেনি। ১৯৬৭ সালে প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ড সফর করা ভারত ৫২ বছরের ইতিহাসে টেস্ট, ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি কোনো সংস্করণেই স্বাগতিকদের ৪-০ ব্যবধানে হারাতে পারেনি।

এদিকে, নিউজিল্যান্ডও জিতেছে রেকর্ড গড়ে। ২০১০ সালে ডাম্বুলায় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভারত হেরেছিল ২০৯ বল বাকি থাকতেই। আজ হ্যামিলটনে ভারতকে হারাতে কিউইরা বল বাঁচিয়েছে ২১২টি। সর্বোচ্চ বল হাতে রেখে রেকর্ড গড়েই জিতলো নিউজিল্যান্ড।

এদিন টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামা ভারতের শুরুটা ভালোই ছিল। কিন্তু পঞ্চম ওভারে শেখর ধাওয়ান ফিরলে ব্যাটিংয়ে ধস নামে অতিথিদের। ট্রেন্ট বোল্ট আর কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম মিলে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের চেপে ধরেন।

আর তাতেই একে একে সাজঘরের পথ ধরেন রোহিত শর্মা, রাইডু, দিনেশ কার্তিকরা। ৫৫ রানে আট উইকেট হারানো ভারত শেষের দিকে চাহাল আর কুলদ্বীপ যাদবের ২৫ রানের ‍জুটিতে লজ্জায় এড়ায়। ৩০.৫ ওভারে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ৯২ রান তুলতে সক্ষম হয় সফরকারীরা।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ট্রেন্ট বোল্ট ২১ রান দিয়ে নিয়েছেন ৫টি উইকেট। ২৬ রান খরচায় ৩টি উইকেট শিকার করেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। সমান একটি করে উইকেট নেন টোড অ্যাস্টল আর জিমি নিশাম।

৯৩ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি নিউজিল্যান্ডেরও। ইনিংসের প্রথম ওভারে ওপেনার গাপটিলকে হারানোর পর ষষ্ঠ ওভারে কেন উইলিয়ামসনকে হারায় স্বাগতিকরা। পরে নিকোলাস আর টেইলর জুটিতে ২১২ বল হাতে রেখেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড। ম্যাচ শেষে ৩৭ রানে অপরাজিত ছিলেন রস টেইলর। তার সঙ্গে ৩০ রানে অপরাজিত ছিলেন নিকোলাস। 

ওয়ানডেতে বল হাতে রাখার হিসেবে এটি ভারতের সর্বোচ্চ ব্যবধানের হার এটি। তার আগেরটি ছিল ২০৯ বলের। ২০১০ সালে ডাম্বুলায় সেই ম্যাচে ২০৯ বল হাতে রেখে ভারতকে হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here