পাকিস্তানকে উড়িয়ে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৩-২ এ নিজেদের করেছে স্বাগতিকরা। বুধবার প্রোটিয়াদের জয় ৭ উইকেটের।

টস হেরে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৪০ রান করে পাকিস্তান। জবাবে ১০ ওভার হাতে রেখেই মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ফ্যাফ ডু প্লেসির দল।

২৪১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে হাশিম আমলা ফেরেন দলীয় ৩৯ রানে। তবে অপর ওপেনার কুইন্টন ডি কক খেলেন ৮৩ রানের ইনিংস। রিজা হেনড্রিক্সের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে ৬১ রানে জুটি হয়েছে তার।

হেনড্রিক্স ৩৪ রান করেন। ডু প্লেসি ও ভন ডার দুসেন চতুর্থ উইকেটে অবিচ্ছিন্ন থেকে ৯৫ রান যোগ করেন। একই সঙ্গে মাঠ ছাড়েন দলের জয় নিশ্চিত করে। ডু প্লেসি ও ডুসেন দুজনই ৫০ রানে অপরাজিত থেকে যান।

এর আগে পাকিস্তানের শুরুটা ভালো হয়নি। চতুর্থ ওয়ানডেতে বড় ইনিংস খেলা ইমাম-উল-হক মাত্র ৮ রান করে আউট হন। এরপর ফখর জামান ও বাবর আজম দ্বিতীয় উইকেটে ৫৬ রানের জুটি গড়েন। বাবর ২৪ রানে আউট হন। দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারালে পাকিস্তানের স্কোর দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৪৭ রান।

এরপর ইমাদ ওয়াসিমের অপরাজিত ৪৭ রান পাকিস্তানকে লড়াই করার পুঁজি এনে দেয়। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭০ রান করেন ওপেনার ফখর জামান। অধিনায়ক শোয়েব মালিক করেন ৩১ রান। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ফেলুকাওয়া ও প্রিটোরিয়াস ২টি করে উইকেট নেন।

ম্যাচ সেরা হয়েছেন কুইন্টন ডি কক। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল পাকিস্তান। ১ ফেব্রুয়ারি তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলবে দুই দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

পাকিস্তান: ৫০ ওভারে ২৪০/৮ (ফখর ৭০, বাবর ২৪, মালিক ৩১, ইমাদ ৪৭*; ফেলুকাওয়া ২/৪২, প্রিটোরিয়াস ২/৪৬)।

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪০ ওভারে ২৪১/৩ (ডি কক ৮৩, ডু প্লেসি ৫০*, দুসেন ৫০*; আমির ১/৪০, শিনওয়ারি ১/৪৩, আফ্রিদি ১/৩৪)।

ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ৭ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩-২ এ জয়ী।

ম্যাচসেরা: কুইন্টন ডি কক।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here