ইরান ও ইউরোপের তিন দেশের মধ্যে আর্থিক লেনদেনের বিশেষ ব্যবস্থাকে স্বাগত জানিয়েছে তুরস্ক। তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু বলেছেন, ইউরোপের পক্ষ থেকে এটি একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ। আজ (শুক্রবার) আনাতুলিয়া বার্তা সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেন, আমেরিকার এই নিষেধাজ্ঞা কেবল ইরানের বিরুদ্ধে নয়। এর ফলে ইউরোপীয় দেশগুলো এমনকি জাপান পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ অবস্থায় আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার বিপরীতে ইউরোপের এই পদক্ষেপ ইতিবাচক। এ সময় তিনি ইরান বিরোধী নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে আবারও আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, তুরস্ক কোনো দেশের বিরুদ্ধেই নিষেধাজ্ঞা আরোপের পক্ষে নয়। আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞা কোনো কাজে আসবে না বলে তিনি জানান।

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট ও ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ-ইভস লা দ্রিয়াঁ গতকাল (বৃহস্পতিবার) রুমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্টে অনুষ্ঠিত এক বৈঠক থেকে ইরানের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের আর্থিক লেনদেনের জন্য বিশেষ চ্যানেল চালুর ঘোষণা দেন।

বিশেষ এই ব্যবস্থার নাম দ্যা ইনস্ট্রুমেন্ট ইন সাপোর্ট অব ট্রেড এক্সচেঞ্জেস বা ইনসটেক্স। এই আর্থিক চ্যানেল ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস থেকে পরিচালিত হবে এবং জার্মান ব্যাংকিং বিশেষজ্ঞরা তা পরিচালনা করবে। এ ছাড়া, ব্রিটেন এই বিশেষ ব্যবস্থা তদারকির দায়িত্ব পালন করবে।

প্রাথমিকভাবে এই ব্যবস্থাটি ইরানে খাদ্য, ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম বিক্রির কাজে ব্যবহার করা হবে এবং ভবিষ্যতে এর পরিধি বাড়বে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here