যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরাঞ্চলকে স্থবির করে দেয়া ভয়ংকর ঠাণ্ডা ও ভারী তুষারের তাণ্ডব চলতি সপ্তাহে পিছু হটেছে, কিন্তু আট রাজ্যে কেড়ে নিয়েছে কমপক্ষে ২৭ জনের প্রাণ।

বাড়ির বাইরে ও তাপহীন ঘরের ভেতরে ঠাণ্ডায় জমে গিয়ে এবং তুষার পরিষ্কার করার সময় বেশির ভাগ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

সেই সাথে কয়েকশ মানুষ ফ্রস্টবাইট (ঠাণ্ডার স্পর্শে দেহের অসাড়তা), হাড় ভাঙা, হার্ট অ্যাটাক ও কার্বন মনোক্সাইডের বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন।

শুক্রবার মিনিয়াপোলিস ও শিকাগোতে অতি ঠাণ্ডা কেটে গিয়ে তাপমাত্রা মাইনাস ৫-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উন্নীত হয়। নর্থ ডাকোটার ডিকিনসনে উষ্ণতা বৃদ্ধি পেয়ে শূন্য ডিগ্রিতে পৌঁছে। আগের দিন সেখানে তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মেরু ঘূর্ণি সরে আসায় ইলিনয়ে একরাতে তাপমাত্রা কমে গিয়ে মাইনাস ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে দাঁড়িয়েছিল। বাতাসের উষ্ণতা ছিল মাইনাস ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা কিছু এলাকায় আরও খারাপ। সেখানে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ফ্রস্টবাইট ও হাইপোথারমিয়া (শরীরের তাপ অস্বাভাবিক কমে যাওয়া) সমস্যা নিয়ে ২২০ জনের অধিক ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

মিনিয়াপোলিসের হেনিপিন হেলথকেয়ারের মুখপাত্র ক্রিস্টিন হিল শুক্রবার বলেন, তারা পুরো শীতকালে ৩০ জনের মতো ফ্রস্টবাইটের রোগী পান। কিন্তু এবার গত সপ্তাহেই ভর্তি হয়েছেন ১৮ জন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here