আপনার পাশের সঙ্গী যদি নিয়মিত নাক ডাকে তাহলে আপনার ঘুমের কি অবস্থা হতে পারে তা সহজেই আচ করা যায়। সঙ্গীর ‘নাসিকা গর্জনে’ আপনি অসহায়। তাই বলে এ থেকে পরিত্রাণের কী কোনো পথ খোলা নেই। অবশ্যই আছে।

নাক ডাকার সমস্যা বেশ বিরক্তিকর ও বিব্রতকর। একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, মাঝবয়সীদের মধ্যে ৪০ শতাংশ পুরুষ আর ২০ শতাংশ মহিলাই ঘুমের মধ্যে নাক ডাকেন। নাক ডাকার সমস্যা আপাত দৃষ্টিতে খুব বেশি ক্ষতিকর মনে না হলেও স্বাস্থের পক্ষে এটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

জার্মানির মিউনিক বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে, স্লিপ ডিসঅর্ডারের এই সমস্যায় হৃদপিণ্ডের ডান এবং বাঁ দিকের ভেন্ট্রিকুলারের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এই সমস্যার চিকিত্সা অবশ্যই রয়েছে। তবে ঘরোয়া ভাবে খুব সহজে এবং বেশ সুস্বাদু উপায়ে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। কী ভাবে? আসুন জেনে নেওয়া যাক…

হলুদের চা:

হলুদ হল প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক। নাক ডাকা সমস্যার সমাধানে এটি অত্যন্ত কার্যকর একটি উপাদান।

  • ২ কাপ পানি মাঝারি আঁচে বসিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন।
  • এতে ১ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা দিয়ে দিন (গুঁড়ো হলেও চলবে)। এ বার আবার জ্বাল দিতে থাকুন।
  • যখন পানি ফুটে ১ কাপ পরিমাণে চলে আসবে তখন তা নামিয়ে ছেঁকে ফেলুন।
  • এ বার আধা চামচ মধু ও ৩-৪ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন।
  • প্রতিদিন ঘুমুতে যাওয়ার ৩০ মিনিট আগে এটি পান করতে পারলে নাক ডাকার সমস্যা দ্রুত দূর হয়ে যাবে।

গাজর-আপেলের রস:  

শুনতে সাধারণ মনে হলেও এই জুসের রয়েছে শ্বাসনালী কিছুটা চওড়া ও শ্বাসনালীর মিউকাস দ্রুত নিঃসরণের ক্ষমতা যা নাক ডাকা থেকে মুক্তি দিতে খুবই কার্যকর।

  • ২টি আপেল ছোটো ছোটো খণ্ডে কেটে নিয়ে ব্লেন্ড করুন অথবা মিহি করে বেটে নিন।
  • এ বার ২টি গাজর কেটে ব্লেন্ড করুন অথবা মিহি করে বেটে নিন।
  • এর পর একটি লেবুর ১/৪ অংশ কেটে তার রস চিপে এতে দিয়ে দিন এবং ১ চামচ আদা কুচি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।
  • কিছুটা পানি দিয়ে বেশ ভাল করে ব্লেন্ড করে নিয়ে ছেঁকে নিন।
  • এই পানীয়টি প্রতিদিন পান করতে পারলে নাক ডাকার সমস্যা দ্রুত নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here