স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, নির্ধারিত দিনক্ষণ অনুযায়ী আগামী ১৫, ১৬ ও ১৭ ফেব্রুয়ারি সম্মিলিতভাবে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। এ ব্যাপারে তাবলীগ জামাতের নেতারা সকলেই ঐকমত্যে পৌঁছেছেন।

রোববার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ইজতেমার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের জানান, মাঠে কে ইমামতি করবেন, কে নেতৃত্ব দেবেন, সেসব খুঁটিনাটি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। দু’পক্ষ মিলে যাতে সুন্দরভাবে ইজতেমা শেষ করা যায়, সেসব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

তিনি বলেন, সারা পৃথিবীতেই তাবলিগ জামাতের মধ্যে এখন দ্বিমত রয়েছে। তার প্রভাব বাংলাদেশেও পড়েছে। এসব বিষয় সমাধানের জন্য ধর্ম প্রতিমন্ত্রী তাবলিগ জামাতের দুপক্ষের দুজন করে চারজন মুরব্বির সমন্বয়ে আলোচনায় বসবেন। এ বৈঠক আজ দুপুরেই সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

এরআগে আজ দুপুর পৌনে ১২টার দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ওই বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও ধর্মমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব আনিসুর রহমান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীসহ তাবলিগ জামাতের দু’ পক্ষের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, ‘তাবলিগ জামাতের মধ্যে দুটি বিবাদমান পক্ষ রয়েছে। উভয়পক্ষই ঐক্যবদ্ধভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সবাই মিলে একসঙ্গে ইজতেমা অনুষ্ঠান করবেন। এ বিষয়ে কোনও দ্বিমত নেই। ইমতেমার অনেক খুঁটিনাটি বিষয় রয়েছে, সেগুলো কীভাবে সম্পন্ন করা যায়, কীভাবে শেষ করা যায় সে আলোচনা চলছে। আজ দুপুরে আবারও আলোচনা হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here