মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি ভেনিজুয়েলায় সেনা পাঠানোর সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিচ্ছেন না। মার্কিন-সমর্থনপুষ্ট ভেনিজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা যখন দেশটির গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট নিকোলস মাদুরোকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টা করছেন তখন এ ঘোষণা দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রোববার সিবিএস টেলিভিশনে প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ভেনিজুয়েলায় সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে তিনি ওই উত্তর দেন। ট্রাম্প বলেন, “অবশ্যই, এটা নিয়ে আমরা ভাবছি, এর সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছি না।”

মার্কিন প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, কয়েক মাস আগে যখন ভেনিজুয়েলায় অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে ব্যাপক অসন্তোষ ও আন্দোলন শুরু হয় তখন তিনি প্রেসিডেন্ট মাদুরোর আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

গতমাসে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট ছয় বছরের জন্য দ্বিতীয় মেয়াদের দায়িত্ব পালন শুরু করেন। তখন থেকে রাজধানী কারাকাসের রাজপথে মাদুরোর সমর্থক ও বিরোধী হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ দেখিয়ে আসছেন।

এরইমধ্যে বিরোধী নেতা ও সংসদ স্পিকার হুয়ান গুয়াইডো নিজেকে ভেনিজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ দাবি করে মাদুরোকে পদত্যাগের আহ্বান জানান। মার্কিন সরকার তাৎক্ষণিকভাবে গুয়াইডোকে স্বীকৃতি দিয়ে ভেনিজুয়েলার তেল খাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

এদিকে রাশিয়া ভেনিজুয়েলার অর্থনৈতিক ও সামাজিক সমস্যা সমাধানে সহায়তা করার জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানানোর পাশাপাশি দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ‘ধ্বংসাত্মক’ হস্তক্ষেপ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here