ইরানের বিমান বাহিনীর প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আজিজ নাসিরজাদে বলেছেন, ‘কমব্যাট ড্রোন’ (হামলার কাজে ব্যবহৃত ড্রোন) তৈরির দিকে দিয়ে ইরান বিশ্বের শীর্ষ পাঁচ দেশের কাতারে স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি সোমবার বার্তা সংস্থা ইরনাকে  বলেছেন, ইরানের সশস্ত্র বাহিনী এখন চাহিদা অনুযায়ী যেকোনো ধরনের ড্রোন তৈরির সক্ষমতা অর্জন করেছে। গত ৪০ বছর ধরে ইরানের বিরুদ্ধে একের পর এক পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও এই সফলতা অর্জন করেছে তেহরান।

ইরানের বিমান বাহিনী প্রধান বলেন, নিষেধাজ্ঞা তার বাহিনীর ওপর কোনো ধরনের প্রভাব ফেলতে পারেনি। একইসঙ্গে তার বাহিনী বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে শক্তিশালী বিমান বাহিনী বলেও জানান জেনারেল নাসিরজাদে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সামরিক সরঞ্জাম ও সমরাস্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে ইরান উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে। নিষেধাজ্ঞা ও প্রবল অর্থনৈতিক চাপ উপেক্ষা করে সমরাস্ত্রের দিক দিয়ে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে ইরান।

একইসঙ্গে তেহরান ঘোষণা করেছে, দেশটির সামরিক শক্তি আত্মরক্ষামূলক এবং এই শক্তিতে কোনো প্রতিবেশী দেশের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here