সাবান বা ফেসওয়াশ নয়, মুখ পরিষ্কার করতে পারেন প্রাকৃতিক উপায়ে। বহু যুগ আগে যখন ফেসওয়াশ, সাবান ছিল না, তখন সকলে ব্যবহার করত প্রাকৃতিক উপাদান। মধু, দুধ, বেসন, মুসুর ডাল বাটা, মুলতালি মাটি, চন্দন, দই, ইত্যাদি। যাকে বলে খাটি জিনিস! তাঁদের ত্বকের উজ্জ্বলতাও ছিল ততটাই নজরকাড়া। আজকাল বাজারে সব প্রোডাক্টেই ভেজাল। রূপের ঔজ্জ্বল্য দূর, উলটে এসবের ব্যবহারে ত্বকের ১২টা বেজে যায়। তাই উজ্জ্বল ও স্বাস্থ্যকর ত্বক পেতে বাজারের প্রসাধনী সামগ্রীর বদলে মুখ পরিষ্কার করুন প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে –

দুধ : কাঁচা দুধ মুখ পরিষ্কার করার অন্যতম প্রাকৃতিক উপাদান। এটি শুধু মুখ ঝকঝকে পরিষ্কারই করে না, ত্বকে আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনে। কোমল করে ত্বক। প্রত্যেকদিন কাঁচা দুধ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

মধু : মধু অন্যতম প্রাকৃতিক স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে। ত্বকের ধুলোবালি পরিষ্কার করে উজ্জ্বলতা বাড়ায়। সামান্য মধু ত্বকের উপর লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ, তারপর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

দই : দইয়ের মধ্যে রয়েছে ল্যাক্টিক অ্যাসিড। এটি একটি প্রাকৃতিক ক্লিনজ়ার। সামান্য দই ত্বকের উপর লাগিয়ে নিন। ১০ মিনিট রাখুন। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

লেবু : ফেসওয়াশ বা সাবানের বদলে মুখ পরিষ্কার করতে পারেন লেবুর সাহায্যে। লেবু প্রাকৃতিক ক্লিনজ়ার ও ব্লিচ হিসেবে কাজ করে। প্রত্যেকদিন লেবু দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করলে তা উজ্জ্বল হবে।

পাকা কলা : স্নানের আগে পাকা কলা চটকে মুখের উপর ঘষে নিন। ত্বকের সব ধুলোবালি দূর করতে কলা খুব ভালো কাজ দেয়। সেইসঙ্গে ত্বক অনেকবেশি সতেজ দেখায়।

ডিমের কুসুম : ডিমের কুসুমের মধ্যে রয়েছে প্রাকৃতিক ক্লিনজ়িং উপাদান। মুখের উপর ডিমের কুসুম মিনিট ১০ লাগিয়ে রাখুন। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন, মুখ পরিষ্কার হয়ে গেছে।

বেসন : রান্নাঘরে বেসন থাকেই। সামান্য বেসন জলে মিশিয়ে ত্বকের উপর লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখুন ত্বক কেমন উজ্জ্বল দেখায়।

মুসুর ডাল বাটা : রাতে সামান্য মুসুর ডাল জলে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে উঠে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। এর মিশ্রণ মুখের উপর লাগিয়ে রাখুন বেশ কিছুক্ষণ। শুকিয়ে যেতে শুরু করলে আলতো ঘষে নিয়ে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। মুখ পরিষ্কার হবে।

মুলতানি মাটি : মুখ পরিষ্কার করার জন্য মুলতানি মাটি খুব ভালো কাজ দেয়। জল বা গোলাপ জলে মুলতানি মাটি মিশিয়ে নিন। ত্বকের উপর লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। তারপর ধুয়ে ফেুলন। ত্বক পরিষ্কার হওয়ার সঙ্গে উজ্জ্বলতা ফুটে উঠবে।

চন্দন : গুঁড়ো চন্দন বা সাধারণ চন্দন জল দিয়ে সামান্য ঘষে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। মিশ্রণটি ত্বকের উপর লাগিয়ে আলতো হাতে ঘষে নিন। কিছুক্ষণ রাখার পর মুখ ধুয়ে ফেলুন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here