১৩টি ইউরোপীয় দেশ ভেনিজুয়েলার সরকার বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়োইডো’কে দেশটির অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে কারাকাস।

ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার এক বিবৃতিতে বলেছে, দেশটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৩টি সদস্য দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করবে। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য ওয়াশিংটন যে ‘অভ্যুত্থান’ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ওই ১৩ ইউরোপীয় দেশ তাতে উসকানি দিয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরো জানায়, এসব ইউরোপীয় দেশ তাদের নীতি পরিবর্তন না করা পর্যন্ত তাদের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি পরিপূর্ণভাবে খতিয়ে দেখা হবে।

গতমাসে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো ছয় বছরের জন্য দ্বিতীয় মেয়াদের দায়িত্ব পালন শুরু করেন। তখন থেকে রাজধানী কারাকাসের রাজপথে মাদুরোর সমর্থক ও বিরোধী হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ দেখিয়ে আসছেন।

এরইমধ্যে বিরোধী নেতা ও সংসদ স্পিকার হুয়ান গুয়াইডো নিজেকে ভেনিজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ দাবি করে মাদুরোকে পদত্যাগের আহ্বান জানান। মার্কিন সরকার তাৎক্ষণিকভাবে গুয়াইডোকে স্বীকৃতি দিয়ে ভেনিজুয়েলার তেল খাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ ব্রিটেন, জার্মানি, ফ্রান্স ও স্পেন ভেনিজুয়েলাকে নতুন করে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন দেয়ার জন্য আটদিনের আল্টিমেটাম দেয়। কিন্তু কারাকাস সে আল্টিমেটাম প্রত্যাখ্যান করার পর গতকাল (সোমবার) রাতে ১৩টি ইউরোপীয় দেশ আমেরিকার পদাঙ্ক অনুসরণ করে হুয়ান গুয়োইডো’কে ভেনিজুয়েলার অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। ইতালির বিরোধিতার কারণে এ ব্যাপারে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থ হয়েছে বলে ফ্রান্সের একটি অজ্ঞাত কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here