আফগানিস্তানের তালেবান বলেছে, ২০১৯ সালের শেষ নাগাদ দেশটি থেকে অর্ধেক মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে। রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় আফগানিস্তান বিষয়ক দু’দিনের অনানুষ্ঠানিক বৈঠক শেষে বুধবার তালেবানের অন্যতম শীর্ষ আলোচক আব্দুস সালাম হানাফি এ তথ্য জানিয়েছেন।

রাশিয়া প্রবাসী একটি আফগান সংগঠনের উদ্যোগে মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া বৈঠকে আফগানিস্তানের বিরোধী দলগুলোর রাজনৈতিক নেতারা তালেবান প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করেন। মস্কো বলেছে, বৈঠকে আফগানিস্তান বা রুশ সরকারের কোনো প্রতিনিধি অংশ নেননি।

আব্দুস সালাম হানাফি বলেন, মার্কিন কর্মকর্তারা তাদেরকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে, চলতি ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই আফগানিস্তান থেকে আমেরিকার সেনা প্রত্যাহার করা শুরু হবে। হানাফি কাতারে তালেবান দফতরের উপ প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি এই দাবি করলেও মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়-পেন্টাগনের মুখপাত্র রব ম্যানিং জানিয়েছেন, আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু করার  কোনো নির্দেশ সেনাবাহিনী পায়নি।তিনি বলেন, তালেবানের সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত থাকলেও আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন সেনা বিন্যাসে পরিবর্তন আনার কোনো নির্দেশ এখনো পেন্টাগনকে দেয়া হয়নি।

সম্প্রতি আফগান বংশোদ্ভূত শীর্ষস্থানীয় মার্কিন কূটনীতিক জালমাই খালিলজাদকে আফগানিস্তান বিষয়ক বিশেষ দূত নিয়োগ করার পর তালেবানের সঙ্গে আমেরিকার আনুষ্ঠানিক সংলাপ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তালেবান আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে গেলেও আফগান সরকারের সঙ্গে সংলাপে বসতে অস্বীকৃতি জানিয়ে এসেছে। তালেবান নেতারা আমেরিকার সঙ্গে আলোচনার একই সময়ে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় আফগান রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here