আগামী বিশ্বকাপের পরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে মাশরাফি মর্তুজা অবসর নেবেন বলে জোর গুঞ্জন। নিজেও অনেকবার দিয়েছেন সে ইঙ্গিত। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে আরও কতদিন খেলবেন তা নিয়ে এতদিন আলোচনা হচ্ছিল না। এবারের বিপিএল থেকে বিদায় নেওয়ার পর উঠেছে সে প্রশ্ন, এটাই কি মাশরাফির শেষ বিপিএল? ক্রিকেট মাঠ থেকে সংসদে যাওয়া এই ক্রিকেটার তা উড়িয়ে দিয়ে বলল বিশ বছর মাঠে থাকতে চান তিনি।

বুধবার রাতে বিপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা ডায়নামাইটসের কাছে হেরে বিদায় নেয় মাশরাফির রংপুর রাইডার্স। সামনের বিপিএলের আগে তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার গুঞ্জন আছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসন থেকে নির্বাচিত সাংসদ মাশরাফি পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ হলে কি ঘরোয়া ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন?

বুধবার খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ইতিবাচক সাড়া দিয়ে নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে আভাস দিলেন তিনি, ‘ইনশাল্লাহ… আল্লাহ বাঁচিয়ে রাখলে, সুস্থ থাকলে ইচ্ছা আছে (আবার বিপিএলে খেলার)। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কি হবে জানি না, তবে সবকিছু মিলিয়ে একটা ইচ্ছা ছিল বিশ বছর ক্রিকেট খেলার। শুধু যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটই আছে, তা তো নয়। ঢাকা লিগ, বিপিএল এসব আমাদের এখানে বড় টুর্নামেন্ট, এখান থেকে জাতীয় দলে যায়।’

সেই ২০০১ সালে দেশের ক্রিকেটে পা পড়ে মাশরাফির। অনূর্ধ্ব-১৭ দলে ঝলক দেখিয়ে সে বছরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক তার। ২০ বছর ক্রিকেট খেললে ২০২১ পর্যন্ত মাশরাফিকে মাঠে দেখতে পারেন ভক্তরা। অন্তত তেমন ইচ্ছাই যে তার আছে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন তা, ‘আগে থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল বিশ বছর খেলার। হবে কিনা জানি না, তবে ইচ্ছা আছে। এখন বিপিএল যদি পরের বছর সময় মতো হয়, তাহলে ইচ্ছা আছে। তবে বলতে পারছি না এখনই। ইচ্ছা আছে খেলার। দেখা যাক…।’

ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মিলে ১৮ বছর পার করে দেওয়া মাশরাফির ইচ্ছা পূরণ হলে তাকে অন্তত আরও দুই বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে পাওয়া যাবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here