অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে খেলেছেন পাঁচটি বিশ্বকাপ। এরমধ্যে শিরোপা ছুঁয়েছেন তিনবার। দুইবার ছিলেন অধিনায়ক। এমন একজন সাবেক ক্রিকেটারকে যেকোন দেশই কাজে লাগাতে চাইবে। ব্যতিক্রম নয় অস্ট্রেলিয়াও। তাইতো এবারের ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে রিকি পন্টিংকে দেখা যাবে অস্ট্রেলিয়ার সহকারী কোচ হিসেবে। দেশটির সংবাদমাধ্যম ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) এমনটাই জানিয়েছে।

দুইদিন আগেই অস্ট্রেলিয়ার বোলিং কোচের পদ থেকে ডেভিড স্যাকার পদত্যাগ করেছেন। তার জায়গায় এবার পন্টিংকে কোচিং অন্তর্ভুক্ত করার খবর জানাল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। ষষ্ঠ বিশ্বকাপ শিরোপার সন্ধানে জুন-জুলাইয়ে জাস্টিন ল্যাঙ্গারদের সঙ্গে কাজ শুরু করবেন তিনি। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) হাই পারফরম্যান্স নির্বাহী প্রধান বেলিন্ডা ক্লার্ক এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘কোচিং স্টাফের ট্যাকটিকসে পরিবর্তনের অংশ হিসেবে রিকি পন্টিংকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারকে গেম-প্ল্যান, ট্যাকটিকস তৈরি সহায়তা ছাড়াও ব্যাটসম্যানদেরও সহায়তা করবেন তিনি।’

বিশ্বকাপের পরপরই অ্যাশেজের জন্য তৈরি হবে অস্ট্রেলিয়া। তার আগেই পেইনদের ব্যাটিং কোচ গ্রায়েম হিক ঐ সিরিজের জন্য ব্যাটসম্যানদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করবেন। আর পন্টিং ব্যাটসম্যানদের প্রস্তুত করবেন বিশ্বকাপের জন্য। ৩০ মে ইংল্যান্ডে শুরু হবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি দলের সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করেছেন পন্টিং। তাছাড়া দেশটির জার্সিতে ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ জিততে দারুণ ভুমিকা রেখেছিলেন তিনি। এছাড়া ২০০৩ ও ২০০৭ সালে অজিদের বিশ্বকাপ জেতাতে দিয়েছিলেন নেতৃত্ব। তাই দলটির বর্তমান হেড কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার তাই মনে করছেন বিশ্বকাপের মুকুট ধরে রাখতে পন্টিংয়ের অভিজ্ঞতার জুড়ি নেই, ‘পন্টিং জানে বিশ্বকাপ কীভাবে জিততে হয়। আর আমি জানি সে দলের খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ হতে যাচ্ছে।’

আগামী বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার সহকারী কোচের দায়িত্ব পেয়ে দারুণ খুশি পন্টিং, ‘এ বছর বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার কোচিং স্টাফে যোগ দিতে আমি উন্মুখ হয়ে আছি। এরআগে দলটির হয়ে খন্ডকালিন কোচ হিসেবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দারুণ উপভোগ করেছিলাম। কিন্তু বিশ্বকাপে দায়িত্ব পালন করাটা হবে ভিন্ন কিছুই।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here