সাকিব আল হাসান, কিরণ পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, সুনিল নারাইন। অন্যদিকে থিসারা পেরেরা, শহীদ আফ্রিদি, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস শিবিরে এমন সব অলরাউন্ডারদের ছড়াছড়ি। স্বাভাবিকভাবেই আজ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের ফাইনালে আগুনে লড়াইয়ের অপেক্ষায় রয়েছে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট!

এবারের বিপিএলে লিগ পর্বে ঢাকা-কুমিল্লা মুখোমুখি হয়েছিল দু’বারই। কিন্তু দু’বারই জিতেছিল কুমিল্লা। স্বাভাবিকভাবেই আজকের ফাইনালে কিছুটা হলেও এগিয়ে ভিক্টোরিয়ানস। দলটির অধিনায়ক ইমরুল কায়েসও জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী, ‘এগিয়ে থাকার দিক থেকে বলতে পারেন যে আমরা দুটো ম্যাচ ওদের সঙ্গে জিতেছি। আত্মবিশ্বাসের দিক থেকে আমরা ভালো অবস্থানে আছি। কারণ একটি দলকে যখন দু’বার হারাবেন তখন আল্টিমেটলি প্রতিপক্ষ দল কিন্তু আমাদের নিয়ে বেশি চিন্তা করবে। এটাই আমার কাছে মতে হয় ইতিবাচক দিক।’

আগের দুই দেখায় হারলেও আজ অন্যরকম কিছুই উপহার দিতে চাইছেন ঢাকা ডায়নামাইটস অধিনায়ক সাকিব আল হাসান,‘পেছনের দুটো ম্যাচে আমার দল দুর্দান্ত কায়দায় ক্রিকেট খেলেছে। আমরা এখন ফাইনালে। দলের বাকিদের কাছে এরচেয়ে বেশি আর কি চাইতে পারি। আমি চাই এখন এই ফাইনাল ম্যাচ আমার পুরো দল উপভোগ করুক।’

ইমরুল-সাকিব যায় বলুক না কেন আজ সন্ধ্যা ৭টায় মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া জমাট ফাইনালে শক্তির বিচারে ঢাকা-কুমিল্লা উভয় দল প্রায় সমান অবস্থানে। যদিও গ্রুপ পর্বের দু’বারের দেখায় ঢাকাকে হারিয়ে কুমিল্লা এগিয়ে থাকার দাবি তুলছে। তবে বেশি অলরাউন্ডার থাকা এবং পেছনের দুই ম্যাচে বড় জয়ে ফাইনালে ওঠায় ঢাকার আত্মবিশ্বাসের পারদটা একটু হলেও বেশি।

ফাইনাল আজ জমিয়ে দিতে পারেন কুমিল্লার দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও এভিন লুইস। এই দুজনের একজন যদি ১০ ওভার পর্যন্ত জমে যান, তাহলে ঢাকার সামনে সমুহ বিপদ। অন্যদিকে দলটির মিডেল অর্ডার ব্যাটসম্যান শামসুর রহমানও যে ফর্মে আছেন, ঢাকার চিন্তা বাড়াতে সেটাও। এদিকে এনামুল হক বিজয় ও ইমরুল কায়েস তাদের পুরনো রুপে ফিরতে মরিয়া। লোয়ার মিডলঅর্ডারে শহীদ আফ্রিদি ও থিসারা পেরেরা বড় হুমকি হতে পারে সাকিবদের জন্য।

এদিকে ঢাকার সবচেয়ে বড় শক্তি চার অলরাউন্ডার; নারাইন, সাকিব, রাসেল ও পোলার্ড। আগের দুই নকআউট ম্যাচের দল নিয়েই সম্ভবত ফাইনালে নামছে ঢাকা। আগের ম্যাচে ব্যর্থ হলেও শ্রীলঙ্কান ওপেনার উপুল থারাঙ্গার ওপরই ফাইনালে আস্থা রাখছে সাকিব আল হাসানের দল। এদিকে রনি তালুকদার, নুরুল হাসান সোহান, শুভাগত হোমরাও কম যাচ্ছেন না। কুমিল্লার টপঅর্ডারে একগাদা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান থাকায় ঢাকার বোলিংয়ের শুরুটাও হবে নিশ্চয়ই অফস্পিনার দিয়ে। সার্বিকভাবে ট্রফির যোগ্য দাবিদার ঢাকা। বিপিএল ইতিহাসও তাদের পক্ষে সাক্ষ্য দেয়। পাঁচ আসরের তিনবারই চ্যাম্পিয়ন তারা। তবে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে প্রতিপক্ষ কুমিল্লা বলেই শঙ্কা থাকছে।

সবমিলিয়ে বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের ফাইনালে আজ সন্ধ্যায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে আশা করছেন দেশের ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। যুদ্ধ হবে সেয়ানে-সেয়ানে। বেজে উঠবে দামামা।

ঢাকা ডায়নামাইটস সম্ভাব্য একাদশ:

উপুল থারাঙ্গা, সুনিল নারাইন, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মিজানুর রহমান, নুরুল হাসান সোহান, রনি তালুকদার, কাইরন পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, শুভাগত হোম, রুবেল হোসেন ও কাজী অনিক।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস সম্ভাব্য একাদশ:

তামিম ইকবাল, এভিন লুইস, ইমরুল কায়েস (অধিনায়ক), এনামুল হক বিজয়, শামসুর রহমান শুভ, শহীদ আফ্রিদি, থিসারা পেরেরা, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, ওয়াহাব রিয়াজ, মেহেদী হাসান ও সনজিত সাহা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here