ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে দেখা দেয় নানা সমস্যা। চিন্তাভাবনা না করে অনেকেই ফার্মেসি থেকে নিয়ে নেন ওষুধ। এটি কখনো কখনো হিতে বিপরীত হতে পারে। ‘রিডার্স ডাইজেস্ট’ আরও কিছু বিষয়ের কথা বলছে যেগুলো সিজনাল ফ্লুতে এড়িয়ে চলা উচিত।

কম হাত ধোয়া

অনেকে সারা দিনে দুই থেকে তিনবার হাত পরিষ্কার করেন। ঋতু পরিবর্তনের সময় এটি ঠিক না। সারা দিনে বেশি বেশি হাত ধোয়া উচিত।

নিউইয়র্ক ভিত্তিক একটি হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. সোনপাল বলছেন, ‘জীবাণু থেকে রক্ষা পাওয়ার এটি সহজ উপায়।’

অ্যান্টিবায়োটিককে ‘না’ বলুন

সোনপাল বলেন, ‘ফ্লু হলে অ্যান্টিবায়োটিক কাজ করে না। কখনো কখনো পরিস্থিতি আরও খারাপ করে দেয়। এর চেয়ে বরং প্যারাসিটামল জাতীয় ওষুধে বেশি উপকার পাওয়া যায়।’

বিশ্রাম

অসুস্থ হলে অনেকে বিশ্রাম না নিয়ে কাজে নেমে পড়েন। এটি মোটেও উচিত নয়। ফ্লু হলে অন্তত তিন সপ্তাহ বিশ্রাম নেয়া উচিত।

ঘুম

এই সময়ে পর্যাপ্ত ঘুমানো উচিত। ঘুমের কারণে ব্রেন বিশ্রাম পায়। শরীর সতেজ থাকে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, ইনফ্লুয়েঞ্জার সময় সুস্থ হতে ব্রেন বেশি ভূমিকা রাখে।

ভিটামিন

ভিটামিন জাতীয় ওষুধ এই সময়ে কম খাওয়া উচিত। ভিটামিন সি’র আলট্রা হাই ডোজ অনেক সময় ডায়রিয়ার কারণ হতে পারে।

পানি

পানি পান করা বন্ধ কিংবা কমানো যাবেই না। পানি এমন একটি উপকারী পদার্থ, যা বেশি খেলেও ক্ষতি হয় না।

যদি হয় জ্বর

জ্বর হলে নিয়মিত মাথায় পানি দিতে হবে। গা মুছে ফেলতে হবে। শুধু প্যারাসিটামল ওষুধেই জ্বর কমে যাবে। তবে পাঁচ দিনের বেশি স্থায়ী হলে এবং তাপমাত্রা বেশি হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here