স্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন প্যাট কামিন্স। একইসঙ্গে প্রথম ফিঙ্গার স্পিনার হিসেবে বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটারের শিরোপা ছিনিয়ে নিলেন ন্যাথন লায়ন। বর্ষসেরা মহিলা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন আলিসা হিলি। সোমবার অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের বর্ষসেরা পুরস্কারের মঞ্চে অ্যালান বর্ডার ও বেলিন্ডা ক্লার্ক মেডেল গলায় ঝোলান প্যাট কামিন্স ও আলিসা হিলি।

ন্যাথন লায়নের পাশাপাশি বর্ষসেরা ওয়ান ডে ও বর্ষসেরা টি-টোয়েন্ট ক্রিকেটারের শিরোপা পেলেন যথাক্রমে মার্কাস স্টোইনিস ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২০১৪-২০১৮ পর্যন্ত অ্যালান বর্ডার পদক ভাগ করে নিয়েছিলেন স্যান্ডপেপার গেট কান্ডে নির্বাসিত দুই তারকা ক্রিকেটার। অর্থাৎ পাঁচবছর পর স্টিভ স্মিথ কিংবা ডেভিড ওয়ার্নার ব্যতিত অন্য কোনও অজি ক্রিকেটারের মাথায় উঠল এই শিরোপা।

৯ জানুয়ারি ২০১৮ থেকে ৭ জানুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত সময়কালের পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করে সোমবার বর্ষসেরা ক্রিকেটারদের সম্মানিত করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এই সময়কালের মধ্যে ৮টি টেস্টে ৩৬ উইকেট নিজের দখলে নিয়েছেন কামিন্স। এছাড়া ২টি দুরন্ত অর্ধশতরান এসেছে এই স্পিডস্টারের ব্যাট থেকে। পাশাপাশি বিগত ক্যালেন্ডার ইয়ারে ছ’টি ওয়ান ডে ম্যাচে ৮ উইকেট ঝুলিতে ভরেছেন কামিন্স।

অন্যদিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বিচারে বর্ষসেরা ক্রিকেটার হওয়ার আগে আইসিসি’র বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছিলেন আলিসা হিলি। অস্ট্রেলিয়া মহিলা ক্রিকেট দলের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন হিলি। ৫৬.২৫ গড়ে টুর্নামেন্টে হিলির ব্যাট থেকে এসেছিল ২২৫ রান। পাশাপাশি বিগত ক্যালেন্ডার ইয়ারে ছ’টি ওয়ান ডে ম্যাচে ৫৪.৮৩ গড়ে এই প্রমিলা ক্রিকেটারের ব্যাট থেকে আসে ৩২৯ রান।

১০টি টেস্ট থেকে ৫০ উইকেট সংগ্রহ করা ন্যাথন লায়ন টেস্ট ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে ছিলেন প্রথম এবং একমাত্র পছন্দ। অন্যদিকে বর্ষসেরা ওয়ান ডে ক্রিকেটার স্টোইনিসের অবদান ১৩টি ওয়ান ডে ম্যাচে বল হাতে ১৩ উইকেট, পাশাপাশি ব্যাট হাতে ৩৭৬ রান। ওয়ান ডে ক্রিকেটে গত এক বছরে অজিদের খারাপ সময়ের মাঝেও স্টোইনিসের অবদান ছিল উল্লেখযোগ্য।

২০১৫ পর ফের ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বিচারে বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটারের খেতাব জিতে নিলেন মারকুটে ব্যাটসম্যান তথা অল-রাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। বিগত ক্যালেন্ডার বর্ষে ১৮৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৪৩.৭৫ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট হাতে ম্যাক্সওয়েলের সংগ্রহ ৫০৬ রান। পাশাপাশি বল হাতে ৯টি উইকেট লেখা রয়েছে তাঁর নামের পাশে। ঘরোয়া ক্রিকেটে বর্ষসেরা পুরুষ ও মহিলা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন যথাক্রমে তাসমানিয়ার ম্যাথু ওয়েড ও ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার হিথার গ্রাহাম।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here