অবশেষে থাইল্যান্ডের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ায় আশ্রয়গ্রহণকারী বাহরাইনের ফুটবল খেলোয়াড় হাকিম আল-আরাইবি। ২৫ বছর বয়সী এ খেলোয়াড়কে দেশে ফেরত নেয়ার জন্য বাহরাইন সরকার যে দাবি করে আসছিল তা প্রত্যাহার করার পর আল-আরাইবি মুক্তি পান।

মঙ্গলবার সকালে তিনি থাইল্যান্ড থেকে অস্ট্রেলিয়া রওয়ানা দিয়েছেন এবং বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আইনজীবী নাদতাসিরি বার্গম্যান এবং থাই ইমিগ্রেশন পুলিশের প্রধান সুরাসাতে হাকপার্ন।

এর আগে, গতকাল সরকারি কৌঁসুলি থাই আদালতে হাকিম আল-আরাইবিকে বাহরাইনে ফেরত পাঠানোর দাবি প্রত্যাহার করার জন্য একটি আবেদন জমা দেন। বাহরাইন সরকার ওই দাবি থেকে সরে গেছে বলে থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ইঙ্গিত পেয়ে সরকারি কৌঁসুলি আদালতে আবেদন জানান। তবে কী কারণে বাহরাইন সরকার হাকিম আল-আরাইবিকে দেশে ফেরত নেয়ার দাবি থেকে সরে গেছে তা জানা যায় নি।

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেরাইজ পেইন আল-আরাইবির মুক্তির খবরকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এর মাধ্যমে মানবাধিকারের বিরাট বিজয় হলো।

গত নভেম্বর মাসে হাকিম আল-আরাইবি অস্ট্রেলিয়া থেকে হানমিুন করার জন্য থাইল্যান্ডে যান। এ সময় বাহরাইন সরকার বিষয়টি জানতে পেরে তাকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য থাই সরকারকে অনুরোধ করে। মানামার অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে আল-আরাইবিকে আটক করে থাই সরকার। এরপর আইনি লড়াই শুরু হয় এবং বিষয়টি আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। শেষ পর্যন্ত বাহরাইনের এ ফুটবলার মুক্তি পেলেন। তার বিরুদ্ধে বাহরাইনে সরকার-বিরোধী আন্দোলনে অংশ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে এবং দেশটির আদালত তাকে ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here