বিএনপি জামায়াত দুটোই সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল। একটি বেশি আরেকটি কম, পার্থক্য শুধু এটুকুই। বললেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আদর্শগতভাবে জামায়াতও বিএনপিতে ছাড়বে না, আবার বিএনপিও জামায়াতকে ছাড়বে না। তবে তেমন কোনো বিষয় যদি ঘটে তাহলে  তা কৌশলগত কারণে হবে। বিএনপি জামায়াতকে কিংবা জামায়াত বিএনপিতে ছাড়বে না।

তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি না এলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতার অভাব হবে না। বিএনপি একটি বড় দল তারা নির্বাচনে অংশ না নিলে সেটি গ্রহণযোগ্য হবে কিনা তা নিয়ে একটু সংশয় থাকে। দেশে বিদেশে প্রশ্নটা আসে। কিন্তু স্থানীয় সরকার নির্বাচনে কারা জয়েন করল কারা বয়কট করল এটা নিয়ে আসলে খুব একটা দুশ্চিন্তা বা মাথাব্যথার কোনো কারণ নেই। স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনেকে দলীয় প্রতীকে না করলে স্বতন্ত্রভাবেও করতে পারে। আমাদের কাছে খবর আছে, বিএনপির অনেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবে।

ডাকসু নির্বাচন ছাত্রদল বয়কট করতে পারে, এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, অংশ নেবে না এটা তারা এখনও ঘোষণা দেয়নি। এটা দেখা যাক, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার এখনও তো অনেক সময় বাকি। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর এ বিষয়ে বলা যাবে। আপতত দাবি-দাওয়ার প্রশ্নে কিছু কিছু স্ট্যান্ড তো দলগতভাবে থাকতেই পারে।

সড়কে শৃঙ্খলা না ফেরার বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী নিজের দায় স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে বিআরটিএ’র কার্যক্রম ঢেলে সাজানো হবে। এ বিষয়ে আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিতব্য সড়ক নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিলের সভায় সুপারিশ চাওয়া হবে।’

এসময় সড়কে ছোট যান চলাচল বন্ধ করা রাতারাতি সম্ভব নয় বলে জানান মন্ত্রী। তিনি এর জন্য অনেকক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধিদের দায় রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here