বয়সটা ছুঁয়েছে ৪৩ এর কোটা, ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন ৮ বছর আগে। তবে মাঠের ক্রিকেটের মায়াটা বোধহয় ছাড়তে পারছেন না পাকিস্তানি তারকা পেসার শোয়েব আখতার। হঠাৎ করেই ঘোষণা দিয়েছেন, আবার নতুন করে ফিরছেন তিনি। শোয়েবের এমন বার্তাতে বেশ উচ্ছ্বসিত তার সাবেক সতীর্থরাও।

নেপিয়ারে বুধবার তখন চলছিলো বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটা। বাংলাদেশের ইনিংসের তখন ১৮ তম ওভার, বলহাতে আসলেন কিউই পেসার লুকি ফার্গুসন। ওভারের দ্বিতীয় বলেই ফেরালেন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। এরপর উইকেটে আসলেন সাব্বির রহমান, সাব্বিরকে করা প্রথম বলটা ঘণ্টায় ১৪৭.৭ কিলোমিটার গতিতে ছুড়লেন লুকি। দ্বিতীয় বলটাকে যেন সে তুলনায় আগুনের গোলা বলা যায়, ঘণ্টায় গতি ছিলো ১৫৪.৯ কিলোমিটার।

এমন গতিসম্পন্ন বোলারের কথা ভাবনাতে আনলেই সবার প্রথমে আসবে পাকিস্তানি তারকা পেসার শোয়েব আখতারের নাম। ২০১১ বিশ্বকাপের পর অবসরে যাওয়ার আগে নিজের ১৪ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের পুরোটা সময়ই গতি আগুনে পুড়িয়েন প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের। ১৬ বছর আগে অর্থাৎ ২০০৩ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শোয়েব আখতার তেমনই এক আগুন নিক্ষেপ করেছিলেন পিচে। ঘণ্টায় ১৬১.৩ কিলোমিটার বেগে বল করেছিলেন ‘রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস’।

আজ ১৬ বছর পেরিয়ে গেলেও অধরা রয়ে গেছে সেই রেকর্ড, অনেক চেষ্টাতেও ছুঁতে পারেননি কোনো বোলারই। নিজের গড়া সেই রেকর্ড আবার নতুন করে গড়ার জন্য ফের বাইশ গজে ফেরার বার্তা দিলেন ৪৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার! শুনতে খানিকটা বিস্ময় লাগলেও শোয়েব নিজেই নিশ্চিত করেছেন এমনটা। গতকাল নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে এক ভিডিও বার্তার মাধ্যমে এই খবর জানিয়েছেন শোয়েব নিজেই।

তবে কীভাবে আর কোথায় ফিরছেন তিনি সে ব্যাপারে কিছুই নিশ্চিত করেননি। ভিডিওর সাথে শোয়েব সেখানে লিখে দিয়েছেন, ‘হ্যালো বন্ধুরা, ১৪ ফেব্রুয়ারি তারিখটা ক্যালেন্ডারে টুকে রেখো। আমি আসছি লিগ খেলতে। বাচ্চাদেরও তো জানা উচিত গতি কাকে বলে!’

শোয়েবের এই টুইট দেখেই উচ্ছ্বসিত হয়ে গিয়েছেন তাঁর সাবেক সতীর্থ ও আরেক কিংবদন্তি ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম। তিনিও টুইট করে জিজ্ঞাসা করেছেন খবরটা সত্যি কি না! টুইট করেছেন পাকিস্তানি অলরাউন্ডার শোয়েব মালিকও।

যেহেতু শোয়েব খোলসা করে কিছু বলেননি সেকারণে অনেকেই মনে করছেন যে, আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে পাকিস্তান সুপার লিগ শুরু হচ্ছে। ফলে এই টুর্নামেন্টেরই কোনও দলের হয়ে খেলতে পারেন তিনি। ২০১১ বিশ্বকাপের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান আখতার। বর্তমানে তাকে ধারাভাষ্যকার হিসেবেই পাওয়া যায়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here