ইয়োহান ক্রুইফ অ্যারেনায় গুরুত্বপূর্ণ জয়ে দ্বিতীয়ার্ধে গোল করেন করিম বেনজিমা। তাতে চ্যাম্পিয়নস লিগে নতুন মাইলফলকে নাম লিখলেন রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড।

আয়াক্সকে ২-১ গোলে হারাতে ৬০ মিনিটে লক্ষ্যভেদ করেন বেনজিমা। কেবল চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে ৬০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করলেন তিনি।

বুধবার উজ্জেবিত আয়াক্স শুরু থেকে রিয়ালকে ভীষণ পরীক্ষায় ফেলে। যে কারণে নিজেদের খুব একটা মেলে ধরতে পারেনি ইউরোপ সেরারা। তারপরও পঞ্চদশ মিনিটে বাঁ দিক দিয়ে ভিনিসিউস জুনিয়র দ্রুত আক্রমণে উঠে ডি-বক্সে ঢুকে এক জনকে কাটিয়ে জোরালো শট নেন, ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান আয়াক্স গোলরক্ষক। এদিকে ২৭তম মিনিটে গোলের দেখা প্রায় পেয়েই গিয়েছিল আয়াক্স। কিন্তু সার্বিয়ার ফরোয়ার্ড দুসান তাদিচের শট পোস্টে লেগে ফেরে। এর ১১ মিনিট পর অবশ্য দলটির আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার নিকোলাস তাগলিয়াফিকো হেডে জালে বল পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু তাদিচ অফসাইডে থাকায় ভিএআরের সাহায্য নিয়ে গোল দেননি রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে অবশ্য নিজেদের ছন্দ ফিরে পায় রিয়াল। তাইতো ৫১তম মিনিটে আয়াক্সের পোস্টে দুর্দান্ত শট নেন বেনজেমা। কিন্তু তাকে রুখে দেন দলটির গোলরক্ষক। তারপরও থামেননি ফ্রান্স ফরোয়ার্ড। ৬০তম মিনিটে দারুণ এক আক্রমণে তিনিই রিয়ালকে এগিয়ে দেন। নিজেদের সীমানা থেকে সতীর্থের বাড়ানো বল ধরে ভিনিসিউস বাঁ দিক দিয়ে দ্রুত আক্রমণে উঠে ডি-বক্সে ঢুকে দুজনকে কাটিয়ে ছোট করে পাস দেন বেনজেমাকে। আর প্রথম ছোঁয়ায় জোরালো কোনাকুনি শটে বল ঠিকানায় পাঠান ফরাসি এ ফরোয়ার্ড। ক্লাব ফুটবলে ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতায় বেনজেমার এটি ৬০তম গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসের গোলদাতার তালিকায় তার উপরে আছেন তিন জন; রাউল গনসালেস (৭১), লিওনেল মেসি (১০৬) ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো (১২১)।

সমতায় ফিরতে অবশ্য খুব বেশি সময় লাগেনি আয়াক্সের। ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে নেরেসের বাড়ানো বল ডি-বক্সে পেয়ে ঠান্ডা মাথায় নিখুঁত প্লেসিং শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন হাকিম। এর কিছুক্ষণ পরই আবারও এগিয়ে যেতে পারতো রিয়াল। কিন্তু বেনজেমার বদলি নামা মার্কো আসেনসিওর শট পোস্ট ঘেঁষে লাগে পাশের জালে। তবে স্প্যানিশ এ ফরোয়ার্ডই শেষ মুহূর্তে গোল করে বার্নাব্যুর ক্লাবটি জয়ের হাসি এনে দেন। ডান দিক থেকে দানি কারভাহালের দূরের পোস্টে বাড়ানো দুর্দান্ত ক্রসে পা বাড়িয়ে বল লক্ষ্যে পাঠান অ্যাসেনসিও।

রোমাঞ্চকর ম্যাচে আয়াক্সকে হারালেও ১৩ বারের ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা একটা অস্বস্তি নিয়ে বুধবার মাঠ ছাড়ে। যোগ করা সময়ে সার্জিও রামোস হলুদ কার্ড পাওয়ায় আগামী ৫ মার্চ ঘরের মাঠে তাকে পাবে না দলটি।

চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগের অন্য ম্যাচে বুধবার টটেনহ্যাম হটস্পার ৩-০ গোলে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here