উপজেলা পরিষদের প্রথম ধাপের নির্বাচনে সিরাজগঞ্জের ৮টি উপজেলায় তিনজন চেয়ারম্যান ও তিনজন ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ছয়জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

বিজয়ীরা হলেন- কাজীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চর আদিত্যপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খলিলুর রহমান সিরাজী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও বর্তমান সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন এবং সিরাজগঞ্জ-৪ (উল্লাপাড়া) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শফি।

ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে উল্লাপাড়া উপজেলায় মনিরুজ্জামান পান্না ও শাহজাদপুর উপজেলায় লিয়াকত আলী।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উল্লাপাড়া উপজেলায় রিবলি ইসলাম কবিতা ও শাহজাদপুর উপজেলায় এলিজা খান।

এদের মধ্যে খলিলুর রহমান সিরাজী ছিলেন সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার চর আদিত্যপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। শিক্ষকতা ছেড়ে রাজনীতিতে এসে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এবার উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন তিনি।

তবে তার বিরুদ্ধে কোটিপতির খাতায় নিজের নাম ও অঢেল সম্পত্তি এবং সিরাজগঞ্জ শহরের দত্তবাড়ি মহল্লায় নিজের ও স্ত্রীর নামে প্রায় সাড়ে ৫ শতক জমির ওপর পাঁচতলা বাড়ি নির্মাণ অভিযোগের বিষয়ে তিনি ঠিকাদারী করেছেন বলে দাবি করেন।

এদিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল হোসেন জানান, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে চেয়ারম্যান পদে তিনটি উপজেলায় এবং ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুটি উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বী কোন প্রার্থী না থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

অপরদিকে উল্লাপাড়া উপজেলায় তিনটি পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী কোন প্রার্থী না থাকায় সেখানে এবার নির্বাচন হচ্ছে না বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here