অভিনয়ের সঙ্গে সঙ্গে রেডিয়ো জকি হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছেন করিনা কাপুর খান। তাঁর নতুন রেডিয়ো শোয়ের নাম ‘হোয়াট ওমেন ওয়ান্ট'(What Women Want)। মহিলারা কী ভাবেন, কী চান, কীভাবে নিজেদের মনের জোরে পেরিয়ে যান সমস্ত বাধা, সামাজিক মিথগুলো কীভাবে ভেঙে এগিয়ে চলেন নির্ভয়ে- এই সমস্ত নিয়েই এই শো। সেই শোয়ে সম্প্রতি অতিথি হিসেবে এসেছিলেন মালাইকা আরোরা। আরবাজ় খানের সঙ্গে তাঁর ডিভোর্স নিয়ে এই প্রথম জনসমক্ষে কথা বললেন মালাইকা।

মালাইকা বললেন, “কেউই কাউকে বলবেনা- যাও, ডিভোর্স নিয়ে নাও। বিশেষ করে যাঁরা আমায় ভালোবাসন তাঁরা তো সবসময় এটাই বলবেন যে, যা করবে ভেবেচিন্তে করবে। আমার ক্ষেত্রেও সেরকমই হয়েছিল। এমনকি ডিভোর্সের আগের দিন রাতে আমার পরিবারের সবাই আমায় সঙ্গে বসেছিল। তাঁরা তখনও এটা জিজ্ঞাসা করছিল “তুমি কি শিওর? তুমি ১০০ শতাংশ নিশ্চিত তোমার সিদ্ধান্ত নিয়ে?” ওঁদের থেকে এই প্রশ্নটাই খুব স্বাভাবিক।”

ডিভোর্স নিয়ে এখনও মধ্যবিত্ত সমাজে কিছু মিথ রয়েছে। এখনও ডিভোর্স হওয়া দম্পতিকে নিয়ে  পিছনে নানারকম মশলাদার আলোচনা হয় তাঁদের পরিচিতদের মধ্যে। ডিভোর্সের নাম শুনে  অবাক হয়ে যাওয়ার একটা প্রবণতা রয়েছে আজও। তাঁদের মালাইকা এটাই বললেন, “তুমি যদি মনে কর একটা খারাপ বৈবাহিক সম্পর্কের মধ্যে রয়েছ তুমি, তাহলে নিজের সম্মানটা সঙ্গে নিয়ে সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসা উচিৎ।”

ডিভোর্সের পরবর্তী জীবনটা একজন মহিলার তুলনায় পুরুষের ক্ষেত্রে অনেক সহজ বলে মনে করেন মালাইকা। এই ক্ষেত্রে সমাজ একজন মহিলাকে একজন পুরুষের তুলনায় অনেক বেশি সন্দেহের চোখে দেখে। হয়তো কিছুটা অপরাধীই মনে করেন তাঁরা মহিলাদের। এমনই দাবি মালাইকার। তবে তাঁর উপদেশ, “নিজের জীবনটাকে নিজের টার্মসে এগিয়ে নিয়ে যাও। মানুষের আলোচনাটাও জীবনের একটা অঙ্গ।”

১৯৯৮ সালে বিয়ে হয় আরবাজ় খান ও মালাইকা আরোরা। বিয়ের প্রায় দশ বছরের মাথায় ২০১৭ সালে বিবাহবিচ্ছেদ হয় তাঁদের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here