বাংলাদেশের চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারী সন্দেহভাজন এক যুবক নিহত হয়েছেন। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) এ তথ্য জানিয়েছে। ময়ূরপঙ্খী নামে বোয়িং-৭৩৭ মডেলের বিমানটিতে ১৪২ জন যাত্রী, পাঁচজন ক্রু ছিলেন।

রোববার রাত ৯টার দিকে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে সেনাবাহিনী জানায়, নিহত ব্যক্তির নাম মাহাদি। তার শেষ কথা ছিল তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে চান। আর তার হাতে একটি পিস্তল ছিল।

ব্রিফিংয়ে সেনা বাহিনীর চট্টগ্রাম জোনের জিওসি মেজর জেনারেল মতিউর রহমান বলেন, ‘অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে একটা বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছিল। এই ছিনতাই নাটকের অবসান হয়েছে সফলভাবে। আজ বিকাল পাঁচটা ৩৩ মিনিটে আমাদের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের মাধ্যমে বিমানবাহিনী জানতে পারে যে, বিমানটি হাইজ্যাক হয়েছে। ককপিট থেকে আমাদের পাইলট এটি জানান। বিমানটি পাঁচটা ৪১ মিনিটে এখানে অবতরণ করে। এরপর এখানে নিয়োজিত বিমান বাহিনী এবং অন্যান্য নিরাপত্তাবাহিনীর সমন্বয়ে ইমার্জেন্সি পদক্ষেপ নেয়া হয়।’

তিনি বলেন, ‘ছিনতাইকারীকে নিবৃত্ত করার জন্য আমাদের কমান্ডো বাহিনী প্রথমে তাকে আত্মসমর্পণের জন্য আহ্বান জানায়। কিন্তু সেই আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে সে আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টা করলে তার ওপর স্বাভাবিক অ্যাকশন যেটা, সেটাই হয়েছে। আমাদের সাথে গোলাগুলিতে ছিনতাইকারী প্রথমে আহত এবং পরবর্তীতে মারা যায়।’

এর আগে, চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের কমিশনার মাহবুবর রহমান বলেছিলেনন, ‘সংকটের সমাধান হয়ে গেছে। গুলিবিদ্ধ একজনকে আটক করা হয়েছে। তার নাম-পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।’

বিমানের ম্যানেজার (জনসংযোগ) তাসনিম আখতার জানান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে যাওয়া দুবাইগামী বাংলাদেশ বিমানের বিজি-১৪৭ নং ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে যাত্রাবিরতির কথা ছিল। একজন যাত্রীকে ছিনতাইকারী বলে সন্দেহ হলে এটি জরুরি অবতরণ করে। পরে সেনা ও নৌবাহিনী র‌্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন সংস্থাকে ডাকা হয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৮ মিনিটের সফল যৌথ অভিযানে ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়।

সিভিল অ্যাভিয়েশনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনী ৭টা ১৭ মিনিটে অভিযান পরিচালনা করে। এটি শেষ হয় ৭টা ২৫ মিনিটে। এ সময় ছিনতাইকারীকে আহত অবস্থায় আটক করা হয়। আটক আহত ছিনতাইকারী সুস্থ হলে তদন্ত করে বিস্তারিত জানানো হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here