স্যার অ্যালিস্টার কুক ক্রিকেটে তার অবদানের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে নাইটহুড উপাধির পদক নিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বাকিংহাম প্রাসাদে আড়ম্বরপূর্ণ এক অনুষ্ঠানে ব্রিটেনের রানীর কাছ থেকে তিনি সম্মানসূচক এই পদক নেন।

৩৪ বছর বয়সী কুক গেল বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন। ভারতের বিপক্ষে ওভালে বিদায়ী টেস্টটি তিনি সেঞ্চুরি দিয়ে রাঙিয়েছিলেন।

ইংল্যান্ডের হয়ে খেলে তিনি অনেকগুলো রেকর্ড ভেঙেছেন। ২০১৮ সালে তিনি ইংল্যান্ডের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান (১২ হাজার ৪৭২) সংগ্রহ করে অবসরে যান। ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরিও রেকর্ড তার দখলে (৩৩টি)।

এমনকী ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট খেলার রেকর্ডটিও তার (১৬১টি)। শুধু তাই নয়, ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি ক্যাচ ধরার রেকর্ডটিও কুকের (১৭৫টি)। অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে বেশি টেস্ট জয়ের রেকর্ডটিও তার দখলে রয়েছে।

পদক নিতে এসে কুক বলেছেন, ‘আমার এমন নাম দেখতে পেয়ে আমি সত্যিই বাকরুদ্ধ। আসলে এই ধরনের প্রাপ্তির সঙ্গে আমি অভ্যস্ত নই। আমি কখনো ভাবিনি যে আমার নামের পূর্বে এক সময় ‘স্যার’ শব্দটি যুক্ত হবে। এগুলো ভাবতে আসলে কখনোই অভ্যস্ত ছিলাম না আমি। এটা সত্যিই অপার্থিব এবং অদ্ভুত।

‘আমি হাজার হাজার দর্শকের সামনে ক্রিকেট খেলেছি। কিন্তু কখনো নার্ভাস অনুভব করিনি। কিন্তু আজ রানীর সামনে গিয়ে নতজানু হয়ে দাঁড়ানো এবং এই বিশেষ পদক নেওয়ার ক্ষেত্রে বেশ নার্ভাস অনুভব করেছি। সত্যিই অদ্ভুত বিষয়টা।’ যোগ করেন তিনি।

১২ বছর পর ইংল্যান্ডের কোনো ক্রিকেটার হিসেবে কুক পেলেন নাইটহুড উপাধি। তার আগে ২০০৭ সালে ইয়ান বোথাম পেয়েছিলেন এই উপাধি। নাইটহুড পেয়ে কুক অবশ্য বিশেষ একটি ক্লাবে প্রবেশ করেছেন। যেখানে আছেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ক্রিকেটার স্যার জ্যাক হবস, স্যার লেন হাটন ও স্যার কলিন কাউড্রের মতো কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা।

এর আগে ২০১১ সালে অ্যালিস্টার কুক মেম্বার অব দ্য মোস্ট এক্সিলেন্ট অর্ডার অব দ্য ব্রিটিশ এম্পায়ার (এমবিই) এবং ২০১৬ সালে কমান্ডার অব দ্য মোস্ট এক্সিলেন্ট অর্ডার অব দ্য ব্রিটিশ এম্পায়ার (সিবিই) অ্যাওয়ার্ড পান।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here