ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং দুই সিটি করপোরেশনের নতুন যুক্ত ৩৬টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচন উপলক্ষে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। নির্বাচন উপলক্ষে নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা ।

দলীয় প্রতীকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনে লড়ছেন পাঁচ প্রার্থী। এর মধ্যে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির প্রার্থী শাফিন আহমেদ লড়ছেন লাঙল প্রতীক নিয়ে।

এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহিম টেবিল ঘড়ি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আনিসুর রহমান দেওয়ানের প্রতীক আম ও প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টির শাহীন খান বাঘ প্রতীক নিয়ে লড়ছেন।

সকাল সাড়ে ৮টায় উত্তরার নবাব হাবিবুল্লাহ স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভোট দেবেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। আর বেলা ১১টায় গুলশানের মানারাত ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে ভোট দেবেন লাঙল প্রতীকের প্রার্থী শাফিন আহমেদ।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার ভোটার। সিইসি উত্তরার ৫ নং সেক্টরের আইইএস স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে নিজের ভোটারাধিকার প্রয়োগ করবেন বলে ইসি সূত্র জানিয়েছে।

জানা গেছে, ঢাকা উত্তর সিটিতে মোট ভোটার ৩০ লাখ সাড়ে ৩৫ হাজার। ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ২৯৫টি। সংরক্ষিত ছয়টি ওয়ার্ডে ৪৫ জন এবং সাধারণ ১৮টি ওয়ার্ডে ১২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি। এ সিটিতে ভোট কেন্দ্র এক হাজার ২৯৫টি ও ভোটকক্ষ ছয় হাজার ৪৮২টি। ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫৩০ জন ও নারী ১৪ লাখ ৭২ হাজার ৯১ জন। উত্তরে নতুন করে যুক্ত হওয়া ১৮টি ওয়ার্ডে ভোটার ৫ লাখ ৯০ হাজার ৭০৫ জন। অপরদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে সাধারণ ওয়ার্ডে ১৮টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ছয়টি। এসব ওয়ার্ডে ভোটার চার লাখ ৯৬ হাজার ৭৩৫ জন, পুরুষ ২ লাখ ৫৪ হাজার ৪৯৭ জন ও নারী দুই লাখ ৪২ হাজার ২৩৮ জন। ভোট কেন্দ্র ২৩৫টি ও ভোটকক্ষ এক হাজার ২৫২।

প্রসঙ্গত, আনিসুল হকের মৃত্যুতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়রের পদটি শূন্য হয় ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর। গত বছরের ৯ জানুয়ারি একদফা এ পদে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হলেও সীমানা জটিলতায় এক বছরের জন্য আটকে যায় ভোট। আইনি জটিলতা নিরসনের পর গত মাসের ২২ তারিখ ঢাকা উত্তরের মেয়র পদে উপনির্বাচন ও উত্তর-দক্ষিণের সংযুক্ত ৩৬ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

যান চলাচলে নিয়ন্ত্রণ : উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল বুধবার রাত ১২টা থেকে আজ রাত ১২টা পর্যন্ত সব ধরনের যান চলাচল বন্ধের নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তবে প্রধান প্রধান সড়কে বাস চলাচলের ওপর কোনো নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি। পরীক্ষার্থীরা প্রবেশপত্র দেখিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করতে পারলেও অহেতুক ঘোরাফেরার জন্য এই যান ব্যবহার করা যাবে না। তবে ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স ও ডাক বিভাগের গাড়ি এই নির্দেশনার বাইরে থাকবে।

ভোটের আগের দিন গতকাল বিকেলে নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেন, ‘ঢাকা শহরে অনেক ইমার্জেন্সি বিষয় আছে। এয়ারপোর্টে একজন যাত্রী যাবে, তার জন্য কি বন্ধ থাকবে? অ্যাম্বুলেন্স যাবে, এক্সপোর্ট-ইমপোর্টের জিনিসগুলো যাবে এ রকম জিনিসগুলো বিবেচনা করে পুলিশকে নির্দেশনা দেওয়া আছে, যাতে এভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। ব্যাপকভাবে সব বন্ধ করে দেওয়া হয়নি।’ বাস চলতে পারবে কি না এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘মেইন রোডে চলবে।’

নির্বাচনে নিরাপত্তা : গতকাল সকাল থেকে দুই সিটিতে টহল শুরু করেছেন ভ্রাম্যমাণ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। আগামী ১ মার্চ পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় পুলিশ, এপিবিএন, ব্যাটালিয়ন আনসার, বিজিবি, কোস্ট গার্ড ও র‌্যাব দায়িত্ব পালন করবে। ডিএনসিসিতে ২৫ প্লাটুন বিজিবি ও ডিএসসিসিতে ৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে। এ ছাড়াও ডিএনসিসিতে চার প্লাটুন ও ডিএসসিসিতে তিন প্লাটুন বিজিবি রিজার্ভ ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here