নিউজিল্যান্ডের গতিময় বাউন্সি উইকেটে সব সময়ই কার্যকর মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু সিরিজের প্রথম টেস্টে তাকে বসিয়ে আবু জায়েদ, খালেদ আহমেদ ও ইবাদত হোসেনের প্রতি আস্থা রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। যদিও ঐ তিন পেসার এখনও তেমন কিছুই করতে পারেনি। সে সুযোগে দাপুটে ব্যাটিং করছেন কিউইরা। তাতে হ্যামিল্টন টেস্টের দ্বিতীয় দিনেই অনেকটা ব্যাকফুটে বাংলাদেশ। যে কারণে ঘরে ফিরেই আসছে প্রশ্নটি কেন নেই মোস্তাফিজ? শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে সেই প্রশ্নটিই আবারও ছুঁড়ে গেল প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের কাছে।

হ্যামিল্টন টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেটে ৪৫১ রান তুলেছে নিউজিল্যান্ড। এর মধ্যে আবু জায়েদ, খালেদ আহমেদ ও ইবাদত হোসেনরা মিলে ২২৬ রান দিয়েছেন। পাননি কোন উইকেট।  স্বাভাবিকভাবেই তাই মোস্তাফিজুরের না থাকার ব্যাপারটি উঠে এসেছে সংবাদ সম্মেলনে।

বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ আগেই বলেছেন, মোস্তাফিজের টানা ৩ টেস্ট খেলা কঠিন! বারবার চোটে পড়ায় বাঁ হাতি পেসারকে নিয়ে সতর্কভাবে এগোতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট। যে কারণে হ্যামিল্টন টেস্টে তাকে একাদশের বাইরে রেখেছে দল। এ ব্যাপারে শুক্রবার রোডস বলেন,  ‘ব্যাক টু ব্যাক টেস্ট খেলা তাঁর জন্য কঠিন। টেস্ট ম্যাচে তাঁকে মানসিকভাবে চাঙা রাখতে হয়। পরের ম্যাচে তাঁর ফেরার সব সুযোগই আছে।’

মোস্তাফিজের জন্য যদি টানা ম্যাচ খেলা কঠিন হয়, তাহলে চলতি টেস্ট খেলেই তাকে বিশ্রাম দিতে পারতো টিম ম্যানেজমেন্ট। এর ব্যাখ্যায় রোডস বলছেন, ‘ওয়েলিংটনে প্রচুর বাতাসের মুখোমুখি হতে হবে। সে কারণে ওখানে তাকে খেলাতে চেয়েছি। বাতাসে সে আমাদের সেরা বোলার। ওয়েলিংটনে তার অনেক দায়িত্ব বলেই এ ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশ দলের সেরা পেসার মোস্তাফিজ। অনেকেই বলছেন আগামী কয়েক বছর তিনি টাইগার পেস অ্যাটকে নেতৃত্ব দেবেন। অথচ এমন বোলার যদি টানা দুই টেস্ট খেলতে পারেন না, আরও আশ্চর্যের ব্যাপার, তার কোচ ক্রিকেট ইতিহাসেরই কিংবদন্তি পেসারদের একজন—ওয়ালশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের একাই পেস অ্যাটাকের দায়িত্ব নিজ কাধে তুলে নিয়েছেন বহুবার। ক্লান্তিহীন বল করে গেছেন ওভারের পর ওভার। সেই ওয়ালশের শিষ্যত্ব নেওয়া মোস্তাফিজের এই অবস্থা কেন?  রোডস এ ব্যাপারে বলেন, ‘ছন্দ, গতি ও লাইন-লেংথ পেতে কোর্টনিকে অনেক বল করতে হতো। কিন্তু এমন বোলার আছে যাদের চাঙা থাকতে হয়, মোস্তাফিজ তাদের একজন।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here