আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, সুবিধা বুঝে বিএনপি নির্বাচন করে। এর আগে তারা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল। তখন চারটিতেই জিতেছিল। তারা রাজনীতিতে ব্যর্থ। তাই এখন কথার চাতুরি ছাড়া আর তাদের কিছু বলার নেই।

আজ শুক্রবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০০১ সালে ১০ শতাংশ ভোট নিয়ে সাদেক হোসেন খোকা মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবার এতকিছুর পরও তুলনামূলক উপস্থিতি অনেক বেশি ছিল। তাই সব মিলিয়ে নির্বাচন ভালো হয়েছে।

নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ার বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, ভোটের দিন ছুটি থাকায় অনেকেই বাড়ি গেছে, বড় একটি দল অংশ নেয়নি, দিনের শুরু থেকেই বৃষ্টি, এছাড়া এটা একটা উপনির্বাচন- সব মিলিয়ে ভোটারদের উপস্থিতি কম ছিল।

কাদের আরও বলেন, সবচেয়ে বড় কথা হলো- আমরা কাউন্সিলর পদে নির্বাচন উন্মুক্ত করে দিয়েছিলাম। এতে করে হানাহানি হওয়ার কথা, কিন্তু সেটা হয়নি। নির্বাচনটি মোটামুটি শান্তিপূর্ণ হয়েছে। এখানে বড় একটি দল অংশ নেয়নি। তাছাড়া বৈরী আবহাওয়া ছিল। সবমিলিয়ে বিবেচনা করতে হবে।

নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ না করার বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপি যেভাবে একের পর এক নির্বাচন বয়কট শুরু করেছে, তাতে আগামী জাতীয় নির্বাচনে তাদের অবস্থা আরও খারাপ হবে। নির্বাচন থেকে দূরে সরে যাওয়া মোটেও গণতান্ত্রিক পথ নয়। তবে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও নেতাকর্মীরা অংশ নিচ্ছে। অংশ নেয়াদের বহিষ্কার করা হলেও মাঠের কর্মীরা থেমে নেই।

এ সময় দলের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here